।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রপ্তানির কারণে দেশের বাজারে দাম বাড়ার অভিযোগ এনে ভারতসহ অন্যান্য দেশে স্থায়ীভাবে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে রিট করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট করেন আইনজীবী মো. মাহমুদুল হাসান।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) এ তথ্য জানিয়ে আইনজীবী মাহমুদুল হাসান বলেন, আবেদনে বাণিজ্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, পররাষ্ট্র, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, আমদানি ও রপ্তানি প্রধান নিয়ন্ত্রকের দপ্তর এবং বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যানকে বিবাদী করা হয়েছে।

আবেদনে বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ বিষয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করা হয়েছে।

রিটে ভারতে ইলিশ রপ্তানি প্রতিরোধে ও বিরত থাকতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ হবে না এ মর্মে রুল জারির আর্জি জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে ভারতসহ অন্যান্য দেশে স্থায়ীভাবে ইলিশ রপ্তানি বন্ধে নির্দেশনা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে।

এছাড়া সাশ্রয়ী মূল্যে জনগণের মধ্যে ইলিশ বিক্রির ব্যবস্থা করতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিবের প্রতি নির্দেশনা দেওয়ার আর্জি জানানো হয়েছে।

এর আগে গত ১১ সেপ্টেম্বর এ বিষয়ে সরকারকে আইনি নোটিশ দিয়েছিল এ আইনজীবী।

ওইদিন মাহমুদুল হাসান জানিয়েছিলেন, ইলিশ মাছ বাংলাদেশের জাতীয় মাছ। কিন্তু বর্তমানে ইলিশ মাছের অত্যাধিক দামের কারণে বাংলাদেশের দরিদ্র জনগোষ্ঠী এ ইলিশ মাছ কেনার কথা চিন্তাও করতে পারে না। অন্যদিকে দেশের মধ্যবিত্ত জনগণও এ ইলিশ মাছ কিনতে হিমশিম খাচ্ছে। বাজারে ইলিশের দাম গড়ে এক হাজার টাকা থেকে এক হাজার ২০০ টাকা কেজি। এছাড়া সবচেয়ে সুস্বাদু ইলিশ হলো পদ্মা নদীর ইলিশ। বাজারে পদ্মার ইলিশের দাম গড়ে ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকা কেজি এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এর চেয়ে বেশি। 

‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দেশের মানুষের চাহিদার কথা চিন্তা না করে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে। ভারতে ইলিশ রপ্তানির ফলে বাংলাদেশের স্থানীয় বাজারগুলোতে ইলিশের দাম আরও বেড়েছে। ’

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশের বাজারদরের চেয়ে কম মূল্যে ভারতে ইলিশ রপ্তানি করা হচ্ছে। 

বাংলাদেশের রপ্তানি নীতি ২০২১-২৪ অনুযায়ী ইলিশ মাছ মুক্তভাবে রপ্তানি যোগ্য পণ্য নয়। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পূর্ণ অনায্যভাবে, জণগণের স্বার্থ উপেক্ষা করে ভারতে ইলিশ রপ্তানির অনুমতি দিয়েছে।

বাংলাদেশ সরকার যদি বিদেশিদের ইলিশের স্বাদ উপভোগ করাতে চায়, সেক্ষেত্রে সরকারের পক্ষে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ‘ইলিশ উৎসব’ আয়োজন করতে পারে। যেখানে বিদেশিদের আমন্ত্রণ জানানো হবে বাংলাদেশে ভ্রমণ করে ইলিশের স্বাদ উপভোগ করার। এমনকি আসন্ন দুর্গাপূজায় ভারতীয়দের আমন্ত্রণ জানানো যেতে পারে বাংলাদেশে ভ্রমণ করে ইলিশের স্বাদ উপভোগ করার। 

এ নোটিশ পাওয়ার সাতদিনের মধ্যে ভারতে ইলিশ রপ্তানি স্থায়ীভাবে বন্ধ করতে অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় ওই বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টে রিট করা হবে বলে জানিয়েছিলেন মাহমুদুল হাসান।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.