।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

দিনাজপুর সদর উপজেলার দাইনুর সীমান্তে বিএসএফ গুলি করে মিনার বাবু (১৫) নামে এক বাংলাদেশি স্কুলছাত্রকে হত্যা করেছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন আরও দুই বাংলাদেশি।

বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) দিনহত রাত ১১টার দিকে ১০নং কমলপুর ইউনিয়নের দাইনুর বিওপি ৩১৫ নম্বর মেইন পিলারের কাছে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত মিনার উপজেলার ৯নং আস্করপুর ইউনিয়নের খানপুর ভিতর পাড়া এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। স্থানীয় খানপুর উচ্চ বিদ্যলিয়ে নবম শ্রেণিতে পড়তো। পড়ালেখার পাশাপাশি মিনার রঙের কাজও করত বলে জানিয়েছে তার পরিবার।

এ ঘটনায় নিখোঁজ ২ বাংলাদেশি হলেন- একই ইউনিয়নের খানপুর এলাকার লতিফুলের ছেলে এমদাদুল (২৮) ও সালমানের ছেলে সাগর (২০)। তারা সবাই ভারত থেকে অবৈধ পথে কচ্ছপের শুটকি আনতে গিয়েছিল বলে জানা গেছে।

নিহত মিনারের মরদেহ বর্তমানে ভারতের দক্ষিণ দিনাজপুর তেলিয়াপাড়া এলাকায় রয়েছে। সেখান থেকে তার মরদেহ গঙ্গারামপুর থানায় নেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে দুটি গুলির শব্দ পাওয়া যায়। খোঁজ খবর নিয়ে জানা  যায় একজন নাকি গুলিতে মারা গেছে। তার মরদেহ সীমান্তের কাছে পড়ে আছে। পরে সকালে তার পরিচয় পাওয়া যায়।

নিহতের বড় ভাই মিজানুর জানান, বুধবার সকালে স্থানীয় এক রঙ মিস্ত্রির সঙ্গে কাজে যায় মিনার। কাজ শেষে বিকেলে বাসায় ফেরার কথা ছিল। কিন্তু রাতেও বাসায় ফেরেনি সে। রাতে মিনারের মোবইল ফোনে কল দিলে বন্ধ পাওয়া যায়। আমার ভাইকে কে বা কারা ডেকে নিয়ে  শুটকি আনতে ওকেই সবার আগে পাঠায়। সকালে আমরা জানতে পারি মিনার গুলি খেয়ে এখানে মরে পড়ে আছে।

দাইনুর বিপিওর নায়েক সুবেদার আক্তার হোসেন জানিয়েছেন, এ বিষয়ে বিএসএফের কাছে আমরা চিঠি পাঠিয়েছি। বিএসএফ চিঠির জবাব দিয়েছে। যে কোনো মুহূর্তে বৈঠকের মাধ্যমে মরদেহ আনা হবে।