।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

কক্সবাজার সদর উপজেলায় ইয়াবা কারবারে বাধা দেওয়ার জেরে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী জিয়া উদ্দিন ফয়সালকে হত্যার দায়ে পাঁচ বছর পর চার আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত; একই সঙ্গে আরও দুজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা ও দায়রা জজ মো. ইসমাইল ছয় আসামির উপস্থিতিতে এই রায় দেন বলে আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ফরিদুল আলম জানান।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- সদর উপজেলার পিএমখালী ইউনিয়নের পূর্ব মাছুয়াখালী গ্রামের রেজাউল করিম (২৫), একই এলাকার নুরুল হক (২৮), রমজান আলী (৩০) এবং মো. রুবেল মিয়া (২৮)।

যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত হলেন- পূর্ব মাছুয়াখালী এলাকার শাহীন উদ্দিন (২৫) এবং মনি আলম (২৪)।

মামলার বরাতে আইনজীবী বলেন, পূর্ব মাছুয়াখালী গ্রামের মো. নুরুল আনোয়ারের ছেলে ও কক্সবাজার ইন্টান্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের পঞ্চম সেমিস্টারের ছাত্র জিয়া উদ্দিন এলাকায় মাদক ব্যবসার প্রতিবাদ ও বিক্রিতে বাধা দিতেন। এতে স্থানীয় মাদক কারবারিরা তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

২০১৭ সালের ১৬ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে পূর্ব মাছুয়াখালী জামে মসজিদের উত্তর পাশে মাদক ব্যবসায়ীরা জিয়া উদ্দিন ফয়সালের ওপর সশস্ত্র হামলা চালানো হয়। গুরুতর অবস্থায় তাকে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরদিন জিয়া উদ্দিন ফয়সালের বাবা মো. নুরুল আনোয়ার বাদী হয়ে ফৌজদারী দণ্ডবিধির ৩০২/৩৪ ধারায় নয় জনকে আসামি করে কক্সবাজার সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই বছরের ৪ জুলাই ছয়জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

আইনজীবী আরও বলেন, রায়ে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তদের প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা এবং অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়।