।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

খোলাবাজারে ডলারের দাম টাকার পরিমাণে কিছুটা বেড়েছে। সাম্প্রতিক সময়ের তুলনায় বৈদেশিক এ মুদ্রার দাম বেড়েছে এক থেকে দুই টাকা।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) ঢাকার মানি চেঞ্জার ও খোলাবাজার থেকে এ তথ্য জানা গেছে। এর আগে বুধবার (২৭ জুলাই) প্রতি ডলার ১০৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১০৮ টাকা ৮০ পয়সা দরে বিক্রি হয়েছে। বৃহস্পতিবার ডলারের বাজার অনেকটাই স্থিতিশীল বলে জানা গেছে।

ঈদের আগে ও পরে মার্কিন ডলারের দাম ১০০ থেকে ১০২ টাকার মধ্যে বেচাকেনা চলছিল। বর্তমানে সেটি বেড়ে ১১২ টাকায় বিক্রি হয়। খোলাবাজারে ডলারে দাম কিছুটা কমে বুধবার। বৃহস্পতিবার ডলারের দাম আবারও এক থেকে দুই টাকা বেড়েছে।

মানি চেঞ্জার প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ডলারের দাম ১০৯ টাকা থেকে ১১০ টাকা দরে ডলার বিক্রি হচ্ছে। বুধবার এটি ১০৭ টাকা ৫০ পয়সা থেকে ১০৮ টাকা ৮০ পয়সা দরে কেনাবেচা হয়।

জামান মানি এক্সচেঞ্জের স্বত্বাধিকারী মো. জামান বলেন, বুধবারের চেয়ে ডলারের দাম এক থেকে দুই টাকা বেড়েছে। আমরা সকালে ১০৭ টাকা ও ১০৮ টাকায় ডলার বিক্রি করছি। দুপুরের পর দাম কিছুটা বাড়তি রয়েছে।

বৃহস্পতিবার ডলার ১০৯ টাকা করে কিনে ১০৯ টাকা ৫০ পয়সায় বিক্রি এবং ১০৯ টাকা ৫০ পয়সা দরে কিনে ১১০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। সকাল থেকে ডলারের এ দাম স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন রেইনবো মানি এক্সচেঞ্জের পরিচালক মো. রফিকুল ইসলাম।

ডলারের সংকটের কারণে বাজারে অস্থিরতা চলমান। এটি স্থিতিশীল হতে কিছুটা সময় লাগবে বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। তারা জানিয়েছেন, ডলারের অবৈধ ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে বাজারে দ্রুতই স্থিতিশীল ফিরবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, ২০২০ সালের জুলাই থেকে গত বছরের আগস্ট পর্যন্ত আন্তঃব্যাংক মুদ্রাবাজারে ডলারের দাম ৮৪ টাকা ৮০ পয়সায় স্থিতিশীল ছিল। কিন্তু এরপর থেকে বড় ধরনের আমদানি ব্যয় পরিশোধ করতে গিয়ে ডলার সংকট শুরু হয়। যা এখনও অব্যাহত আছে।