।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ভারতের উত্তরাঞ্চলীয় বিহার রাজ্যের আট জেলায় মাত্র ২৪ ঘণ্টায় বজ্রপাতে ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বিবিসি জানায়, বিহারের উত্তরের জেলাগুলোয় বুধ ও বৃহস্পতিবার বজ্রঝড়ের সঙ্গে আরও বজ্রপাত হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার বজ্রপাত নিয়ে রাজ্যের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা মেনে চলার জন্য বাসিন্দাদের আহ্বান জানিয়েছেন।

ভারতে প্রতিবছর বর্ষাকালে বজ্রপাতে শত শত মানুষ মারা যায়। দেশটিতে বজ্রপাত সবচেয়ে বেশি ঘটে বিহারে।

ভারতে বজ্রপাতে মৃত্যু বেশি হওয়ার একটি কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে, সেখানে বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় ঘরের বাইরে বহু মানুষ কাজ করে। এতে তাদের বজ্রপাতে মারা যাওয়ার ঝুঁকিও বেশি থাকে।

মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার এক ঘোষণায় বলেছেন, বজ্রপাতে যারা মারা গেছে, তাদের প্রত্যেকের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে চার লাখ করে রুপি দেওয়া হবে।

‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’ বলেছে, মুখ্যমন্ত্রী বিষয়টি নিয়ে গত সপ্তাহে রাজ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। রাজ্যের কর্মকর্তাদেরকে স্কুল, হাসপাতালসহ সব সরকারি ভবনে বজ্রপাত–নিরোধক স্থাপনের ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

ভৌগোলিক অবস্থানের কারণে বর্ষা মৌসুমে বিহার রাজ্যে প্রায়ই এমন প্রাণঘাতী বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে বলে জানানো হয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে।

এ বছর ফেব্রুয়ারিতে বিবিসি-র একটি প্রতিবেদন বলা হয়েছিল, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ভারতে বজ্রপাতের ঘটনা আগের তুলনায় একলাফে অনেক বেড়ে গেছে।

‘ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল মেটেরোলজি’র সংগ্রহ করা স্যাটেলাইট চিত্রে দেখা গেছে, ১৯৯৫ থেকে ২০১৪ সালের মধ্যে ভারতে বজ্রপাতের ঘটনা দ্রুত বেড়েছে।

অলাভজনক সংগঠন ক্লাইমেট রেজিলিয়েন্ট অবজারভিং সিস্টেমস প্রমোশন কাউন্সিলের হিসাবমতে, ২০২০ সালের এপ্রিল থেকে ২০২১ সালের মার্চ পর্যন্ত ভারতে ১ কোটি ৮০ লাখের বেশি বজ্রপাত হয়েছে। এ সংখ্যা আগের একবছরের চেয়ে ৩৪ শতাংশ বেশি।