।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

ঢাকাস্থ পাকিস্তানি হাইকমিশনের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার হাই কমিশনের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে প্রকাশিত একটি ছবিকে কেন্দ্র করে প্রথমে সামাজিক মাধ্যমে বিতর্ক তৈরি হয়। এরপর শুক্রবার বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে বিষয়টিকে ‘পাকিস্তানের ধৃষ্টতা’ হিসেবে উল্লেখ করে এ ঘটনার নিন্দা জানায়। পাশাপাশি তারা এ ঘটনায় পাকিস্তানের হাই কমিশনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ারও দাবি জানায়।

রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের আগে পাকিস্তান এদেশের মানুষের ওপর নির্মম নির্যাতন চালায়। বাঙালিদের ওপর চালানো পাকিস্তানের গণহত্যা বিশ্বের ইতিহাসে একটি উল্লেখযোগ্য নৃশংস ঘটনাক্রম হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে। ফলে দুদেশের সম্পর্কের মধ্যে নানা ধরনের স্পর্শকাতরতা কাজ করে।

বৃহস্পতিবার ঢাকাস্থ পাকিস্তান হাই কমিশন ফেসবুকে যে ছবিটি ব্যবহার করে সেখানে দুদেশের পতাকাকে একীভূত করা হয়েছে। ছবিটি প্রকাশের পর থেকেই সামাজিক মাধ্যমে বিতর্ক শুরু হয়। এমনকি হাই কমিশনের পোস্টের নিচেই অনেকেই এই ছবি ব্যবহারের সমালোচনা করেন। মনির নামের একজন লিখেছেন, ‘৩০ লাখ শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত আমার লাল সবুজের পতাকার সঙ্গে পাকিস্থানি পতাকা সংযুক্ত করে বিকৃতি করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’ পার্থসারথী নামের একজন লিখেছেন, ‘নিঃসন্দেহে এটা জাতীয় পতাকার অবমাননা।’ সিয়াম হোসেন নামের একজন লিখেছেন, ‘পশ্চিম বাংলাদেশের নতুন পতাকা!’

এদিকে, পাকিস্তান হাইকমিশন তাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে বিকৃত করে অবমাননা করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। তাদের প্রতিবাদ লিপিতে বলা হয়, মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যা ও গণধর্ষণে জড়িত পাকিস্তান নামক কুলাঙ্গার রাষ্ট্রের ঢাকাস্থ পাকিস্তান হাইকমিশন কর্তৃক তাদের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে অর্জিত বাংলাদেশের জাতীয় পতাকাকে বিকৃত করে অবমাননা করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। সরকারের নিকট দাবি, অবিলম্বে পাকিস্তান হাইকমিশনের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ।