।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ওয়ানডে থেকে অবসর নিতে যাচ্ছেন ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে মঙ্গলবার প্রথম ওয়ানডে খেলেই ক্রিকেটের এই সংস্করণকে বিদায় বলবেন তিনি।

৩১ বছর বয়সী স্টোকসের হঠাৎ এমন সিদ্ধান্ত সবাইকে অবাক করেছে। কিন্তু ইংলিশ তারকা অবসরের কারণ হিসেবে বলেছেন ঠাসা আন্তর্জাতিক সূচিতে যেরকম ‘শারীরিক ও মানসিক’ চাহিদা সেটি দিতে পারছেন না। পাশাপাশি এই বছরের শুরুতে টেস্ট নেতৃত্ব পাওয়া স্টোকস আরও বলেছেন, তার কারণে নতুন খেলোয়াড়দের আসার পথেও সেটি বাধা সৃষ্টি করছে।

অথচ ইংলিশ তারকার এই গ্রীষ্মে ইংল্যান্ডের ৬টির সব ওয়ানডেই খেলার কথা ছিল। কিন্তু পরিবর্তিত সিদ্ধান্তে এখন কেবল টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটেই মনোযোগ দিচ্ছেন।

স্টোকস বিবৃতিতে বলেছেন, ‘এই ফরম্যাটে সতীর্থদের শতভাগ দেয়ার সামর্থ্য আমার নেই। এমন সিদ্ধান্ত নেওয়াটা কঠিন ছিল। কারণ, ইংল্যান্ডের হয়ে প্রতিটি মিনিট আমি উপভোগ করেছি। এই সময়ে আমাদের জার্নিটা ছিল অবিশ্বাস্য।’

তিনি আরও যোগ করেছেন, ‘কঠিন হলেও এমন সিদ্ধান্ত নিতেই হতো। তবে এই ফরম্যাটে যেহেতু শতভাগ দিতে পারছি না। ওই কথা ভাবলে এটা হয়তো কঠিনও না। এই ইংল্যান্ডের জার্সি অবশ্যই কারো কাছ থেকে কম প্রত্যাশা করে না।’

তার পরেই তিন ফরম্যাটে খেলার মানসিক ধকলের কথা উল্লেখ করেন স্টোকস, ‘এই মুহূর্তে তিন ফরম্যাটে একই ছন্দে খেলা আমার জন্য অসম্ভব একটি ব্যাপার। শুধু এমন নয় যে ঠাসা সূচির জন্য আমার শরীর সেভাবে সাড়া দিচ্ছে না। আমার মনে হচ্ছে আরেকজনের জায়গা দখল করে রেখেছি। যে কিনা জস (বাটলার) ও সতীর্থদের সবটা উজাড় করে দিতে পারবে। এখন আমার জায়গায় একজনের এগিয়ে যাওয়ার সময় এবং গত ১১ বছর যে ধরনের স্মৃতি অর্জন করেছি, নতুন মানুষটিরও সেসবের সঙ্গী হওয়ার সময়।’