।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

আগামী দুইদিন টানা বৃষ্টির কোনও সম্ভাবনা নেই। ফলে তাপপ্রবাহ আগামী দুইদিন অব্যাহত থাকতে পারে। আজও দেশের টাঙ্গাইল, সিলেট ও চুয়াডাঙ্গা জেলাসহ রংপুর ও রাজশাহী বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরণের তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে।

আবহাওয়াবিদ ড. মো. আব্দুল মান্নান বলেন, দেশে বিভিন্ন অঞ্চলে বিচ্ছিন্নভাবে বৃষ্টি হচ্ছে। তবে যে ভ্যাপসা গরম পড়েছে তাতে এই হালকা বৃষ্টিতে কাজ হবে না। দরকার টানা ভারী বৃষ্টি। আগামী দুদিন দেশের কোথাও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। তিনি জানান, বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি। এই কারণে গরমে ঘেমে গেলেও ঘাম শুকাচ্ছে না। ফলে ভ্যাপসা একটা ভাব তৈরি হচ্ছে। এ কারণে যতটুকু তাপমাত্রা বেড়েছে তার চেয়ে বেশি তাপ অনুভূত হচ্ছে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ মধ্য প্রদেশ, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরের অন্যত্র মাঝারি ধরণের সক্রিয় রয়েছে।

আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, রংপুর, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং রাজশাহী, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের দুই-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরণের বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সৈয়দপুরে ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা গত বৃহস্পতিবার ছিল রাজশাহীতে ৩৮ দশমিক ২। এই হিসেবে গড় তাপমাত্রা আরও কিছুটা বেড়েছে। এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকায় ছিল ৩৬, আজ কিছুটা কমে ৩৫ দশমিক ৪; ময়মনসিংহে ছিল ৩৫ দশমিক ৫, আজ একই ৩৫ দশমিক ৫;  চট্টগ্রামে ছিল ৩৫ দশমিক ৫,  আজ ৩৫; সিলেটে ছিল ৩৭ দশমিক ৩, আজ ৩৬ দশমিক ৯; রাজশাহীতে ছিল ৩৮ দশমিক ২, আজ ৩৮; রংপুরে ছিল ৩৬ দশমিক ৫, আজ প্রায় দুই ডিগ্রি বেড়ে ৩৮ দশমিক ২; খুলনায় ছিল ৩৪, আজ কিছুটা বেড়ে ৩৪ দশমিক ৬ এবং বরিশালে ছিল ৩৪ দশমিক ২,  আজ ৩৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে।