।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

দু’-একটি বাদে প্রায় সব ট্রেনের যাত্রা বিলম্বিত হচ্ছে রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশনে। বিভিন্ন ট্রেনের যাত্রী জড়ো হচ্ছেন স্টেশনে। অপেক্ষা করছেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা। প্লাটফর্মে শুয়ে-বসে অপেক্ষা করছেন। আর তাতে ঈদে ঘুরমুখো এসব মানুষের ভোগান্তি চরমে পৌঁছেছে। 

শনিবার (৯ জুলাই) সকাল ৬টা ৪৫ মিনিটে যাত্রা করার কথা ছিল চিলাহাটিগামী নীলসাগর এক্সপ্রেসের। কিন্তু রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ বলছে, ভোর ৬টার ট্রেন ছাড়বে বেলা ৩টার পরে।

সকাল হতে তিন ছেলে, ভাই ও জা-কে নিয়ে ট্রেনটির জন্য অপেক্ষা করছেন মিরপুর-১৩ নম্বর এলাকার বাসিন্দা শাবানা বেগম। তিনি বলেন, ‘সকালে আসলাম ৮০০ টাকা সিএনজি ভাড়া দিয়ে। ১০টা বাজে। শুনছি ট্রেন বেলা ৩টায় আসবে। এখন তো আবার বাসায় ফিরে যাওয়া সম্ভব নয়।’

রংপুরের পীরগাছা যাবেন বেসরকারি চাকরিজীবী মো. আরিফুল ইসলাম। তিনি প্লাটফর্মের বেঞ্চিতে জায়গা না পেয়ে বউ বাচ্চাসহ শেষ পর্যন্ত ফ্লোরে বসে অপেক্ষা করছেন রংপুর এক্সপ্রেসের জন্য। তিনি বলেন, ‘রংপুর এক্সপ্রেস সকাল ৯টা ১০ মিনিটে ছাড়ার কথা ছিল। ১০টায়ও আসেনি ট্রেন। কেরানীগঞ্জ থেকে সকাল ৮টায় আসলাম। আর কতো অপেক্ষা!’

তিনি আরও বলেন, ‘২৪ ঘণ্টা অপেক্ষা করে টিকিট কাটলাম। হুমড়ি খেয়ে পড়ে সমস্যা করছে টিকিটবিহীন লোকজন। যারা টিকিট ছাড়া আসছেন তাদের স্টেশনেই ঢুকতে দেয়া উচিত নয়, কিন্তু তারাই ঢুকে পড়ছেন।’

আরিফুল ইসলাম কর্তৃপক্ষকে টিকিট ছাড়া যাত্রীদের বিষয়ে আরও কঠোর হওয়ার অনুরোধ করেন।

স্টেশন ঘুরে দেখা যায়, গতকাল রাত ১০টায় ছাড়ার কথা ছিল পঞ্চগড় এক্সপ্রেসের। আজ সকাল ১০টায়ও ছাড়েনি ট্রেনটি।

এছাড়া সুন্দরবন, জামালপুর ও একতা এক্সপ্রেস ট্রেনেরও যাত্রা বিলম্বিত হচ্ছে।