।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলায় বাড়িতে ঢুকে মা ও মেয়েসহ তিন জনকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এতে আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুন) রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের খোশালপুর পুটল গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন—মাহমুদ গাজী (৬৫), শেফালী বেগম (৬০) ও তার মেয়ে মনিরা বেগম (৪০)। আহতরা হলেন—বাচ্চুনী বেগম (৫২), শেফালীর স্বামী মনু মিয়া (৭৫) ও তার ছেলে শাহাদাৎ হোসেন (৪০)। মাহমুদ গাজী মনু মিয়ার ভাই।

শেরপুর পুলিশ সুপার (এসপি) হাসান নাহিদ চৌধুরী জানান, রাতে বোরকা পরা একজন মনু মিয়ার বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায়। ধারালো অস্ত্র দিয়ে সবাইকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে গেলে হামলাকারী পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই মনিরা বেগমের মৃত্যু হয়। এরপর বকশীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া পর তার মা ও চাচা মারা যান। আহতদের ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের স্বজনদের বরাত দিয়ে শ্রীবরদী থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, প্রায় ১৭ আগে বছর মনু মিয়ার মেয়ে মনিরার সঙ্গে পাশের গেরামারা গ্রামের মিন্টু মিয়ার বিয়ে হয়। তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। দাম্পত্য কলহের জেরে মনিরা কিছু দিন ধরে বাবার বাড়িতে এসে থাকছিলেন। মনু মিয়ার পরিবারের দাবি, মিন্টুই বোরকা পরে এই হামলা চালিয়েছেন। মনিরাকে হত্যা করতে এই হামলা চালান। অন্যরা বাধা দিতে গেলে তাদেরও কুপিয়ে আহত করেন। এই ঘটনায় পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.