।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

সৌদি আরবের অর্থায়নে দেশের পাঁচটি বিভাগীয় মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে বার্ন ইউনিট স্থাপনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সোমবার (২০ জুন) জাতীয় সংসদে সরকারি দলের সংসদ সদস্য এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ তথ্য জানান। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকের শুরুতে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপন করা হয়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সিলেট, রাজশাহী, রংপুর, বরিশাল ও ফরিদপুরে বার্ন ইউনিট স্থাপন করা হবে। প্রকল্পটি ২০২২ সালের জুলাই থেকে ২০২৫ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদে বাস্তবায়িত হবে। প্রকল্পটি গত বছরের ৭ ডিসেম্বর একনেক সভায় অনুমোদিত হয়। এ ছাড়া চীন সরকারের অর্থায়নে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০০ শয্যাবিশিষ্ট বার্ন ইউনিট চালু করা হবে। পাশাপাশি চতুর্থ সেক্টর কর্মসূচির আওতায় ময়মনসিংহ জেলায় একটি ও খুলনা জেলায় একটি বার্ন ইউনিট স্থাপন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে।’

এম আবদুল লতিফের আরেক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘যেকোনও অসুস্থ ব্যক্তিকে হাসপাতাল, ক্লিনিক বা চিকিৎসকদের কাছে নেওয়া হলে, জরুরি চিকিৎসা সেবা দিতে রাজি না হওয়ার কোনও সুযোগ নেই। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে সব সরকারি-বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিকে কঠোর নির্দেশনামূলক পত্র দেওয়া হয়েছে এবং এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে নিয়মিত তদারকি করা হয়ে থাকে।’

বিএনপির সংসদ সদস্য জিএম সিরাজের প্রশ্নের জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, ‘মাদকসেবীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়ার জন্য ভবিষ্যতে পর্যায়ক্রমে সব জেলায় সরকারি হাসপাতালে পৃথক ইউনিট চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।’

সরকারি দলের সংসদ সদস্য বেনজীর আহমদের প্রশ্নের জবাবে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানান, বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের অধীন কোনও স্থলবন্দর বেসরকারিকরণের পরিকল্পনা আপাতত সরকারের নেই।

সসরকারি দলের সংসদ সদস্য মোজাফফর হোসেনের প্রশ্নের জবাবে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘দেশের অভ্যন্তরীণ নৌবন্দরগুলো থেকে বিআইডব্লিউটিএ তথা সরকারের বার্ষিক আয় প্রায় ১৮০ কোটি টাকা।’