।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ইউনেস্কো ঘোষিত ঐতিহাসিক মসজিদের শহর বাগেরহাটে নতুন করে আরও ১৬৩টি প্রত্নস্থান (সাইট) শনাক্ত করেছে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর। 

সম্প্রতি প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ করে বাগেরহাট সদর উপজেলার ১০ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভাধীন এলাকায় এসব প্রত্নতাত্ত্বিক স্থাপনা শনাক্ত করা হয়।

শনিবার (১৮ জুন) বিকেলে ঐতিহাসিক ষাটগম্বুজ মসজিদ কমপ্লেক্সের মধ্যে অবস্থিত বাগেরহাট যাদুঘরের সেমিনার কক্ষে আয়োজিত এক সভায় এতথ্য জানানো হয়। 

এসময় খানজাহানিয়া গণ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন অধ্যক্ষ শেখ সাইফ উদ্দিন, ষাট গম্বুজ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ আখতারুজ্জামান বাচ্চু, ষাট গম্বুজ মসজিদের ইমাম হেলাল উদ্দিন, মোয়াজ্জিন টি এম মুজিবুর রহমান, উন্নয়নকর্মী আলমগীর হোসেন মিরুসহ স্থানীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

বর্তমানে ষাটগম্বুজ মসজিদ, হযরত খান জাহান (রহ.) এর মাজার, খান জাহান নির্মিত প্রাচীন সড়ক, চুনখোলা মসজিদ, সিঙ্গাইর, রণবিজয়পুর (দরিয়া খাঁ), নয় গম্বুজ, দশ গম্বুজ মসজিদসহ ১৭টি সংরক্ষিত পুরাকীর্তি রয়েছে। 

১৫শ শতকে খান জাহান নির্মিত এমন আরও অসংখ্য স্থাপনা ও নিদর্শন ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে বাগেরহাটে। ১৯৮৩ সালে এসব স্থাপনাকে ইউনেস্কো ‘ঐতিহাসিক মসজিদের শহর বাগেরহাট’ হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান হিসেবে তালিকাভুক্ত করে।

দীর্ঘ বছর পর প্রত্নসম্পদে সমৃদ্ধ এ জেলায় প্রত্নতাত্ত্বিক সরেজমিন জরিপ ও অনুসন্ধানে ১৬৩টি নতুন প্রত্নটিবি, দিঘি, পাথরখণ্ড, প্রাচীন কবর ও জমিদার বাড়ির সন্ধান মিলেছে বলে জানিয়েছেন বাগেরহাট জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান মোহাম্মদ যায়েদ। 

সদর উপজেলার মোট ১৮৪টি গ্রামে এই জরিপ কাজ করে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগ। উপজেলার সবচেয়ে বেশি প্রত্ন সাইটের সন্ধান মিলেছে ষাটগম্বুজ ইউনিয়নে, ৭৩টি। এরপর কাড়াপাড়া ইউনিয়নে ৩৮টি, পৌরসভা এলাকায় ১৫টি। 

মোহাম্মদ যায়েদ বলেন, নতুন করে শনাক্ত হওয়া সাইট মিলিয়ে বাগেরহাট সদরে মোট ১৮০টি প্রত্নসাইট শনাক্ত হলো। এর মধ্য থেকে গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও নিদর্শনগুলোকে সংরক্ষণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।

জেলার অন্যান্য উপজেলাতে আরও এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রত্ন নিদর্শন রয়েছে। সেগুলো সন্ধানেও জরিপ করা হবে। অনুষ্ঠানে আগত ব্যক্তিরা শনাক্ত হওয়া প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলো রক্ষণাবেক্ষণ ও সংরক্ষণের তড়িৎ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.