।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেটে সব শ্রেণির মানুষই উপকৃত হবেন বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। তিনি বলেন, ‘গরিব হওয়া কত কষ্টের আমি হাড়ে হাড়ে বুঝি। তাই প্রত্যেকটি গরিব মানুষকে সামনে রেখে আমরা এই বাজেট দিয়েছি।’

বাজেট নিয়ে শুক্রবার (১০ জুন) রাজধানীর ওসমানি স্মৃতি মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আমি গত তিন বছরে তিনটা বাজেট দিয়েছি। কোনও বাজেটই গরিব মারার ছিল না। আমরা সবসময় বাজেট দেই দেশের জনগণের কথা চিন্তা করে।’

বাজেট বাস্তবায়নের চ্যালেঞ্জ প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘চ্যালেঞ্জ কিন্তু একটা অপরচুনিটিও নিয়ে আসে। আমরা অপরচুনিটিতে বিশ্বাসী।’

কালো টাকা সাদা করার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘টাকা ডিজিটাল মাধ্যমে পাচার হচ্ছে। নরওয়ে, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানিসহ উন্নত দেশও এ ধরনের সুযোগ দেয়। নানা কারণে টাকা পাচার হয়, কোনও প্রমাণ ছাড়া এগুলোর বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেয়া যায় না। তবে কারও কারও ক্ষেত্রে অ্যাকশনও নেয়া হচ্ছে প্রমাণ সাপেক্ষে। এগুলো আমরা চেষ্টা করছি ফেরত আনতে। আপনারা বাধা দিয়েন না। বাধা দিয়ে লাভ কী।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এগুলো কালো টাকা না বলে অপ্রদর্শিত অর্থ বলি। আমরা এ দেশের মানুষের কল্যাণেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

বৃহস্পতিবার (৯ জুন) জাতীয় সংসদে আসন্ন ২০২২-২৩ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। নতুন অর্থবছরের বাজেটের আকার ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকা; যা মোট জিডিপির প্রায় ১৫ দশমিক ৩ শতাংশ। একাদশ জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ (বাজেট) অধিবেশনে ‘কোভিডের অভিঘাত পেরিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা প্রত্যাবর্তন’ শীর্ষক বাজেট উপস্থাপন করেন অর্থমন্ত্রী।