।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পাকিস্তানের করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক বিস্ফোরণে অন্তত চারজন নিহত হয়েছে, এদের মধ্যে তিনজন চীনের নাগরিক বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

মঙ্গলবারের এ ঘটনায় আরও দুইজন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন তারা।

পাকিস্তানের গণমাধ্যম ডন অনলাইন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, স্থানীয় সময় দুপুরে করাচি বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের সামনে বিস্ফোরণটি ঘটে।

ডন জানায়, সিন্ধু প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী মুরাদ আলী শাহকে এক টেলিফোন কলে নিহতের এ সংখ্যা নিশ্চিত করেন প্রাদেশিক পুলিশের মহাপরিদর্শক মুস্তাক আহমেদ মাহার।

মুখ্যমন্ত্রীর দপ্তর থেকে দেয়া এক হ্যান্ডআউটে পুলিশ প্রধানের উদ্ধৃতি দিয়ে দুপুর প্রায় আড়াইটায় একটি মাইক্রোবাসে বিস্ফোরণটি ঘটেছে বলে জানানো হয়েছে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়টির একজন মুখপাত্র নিহতদের মধ্যে তিনজন চীনের নাগরিক বলে নিশ্চিত করেন। তার হলেন কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের পরিচালক হুয়াং গুইপিং, ডিং মুপেং এবং চেন সা। নিহত অন্যজন গাড়িটির চালক পাকিস্তানি নাগরিক খালিদ।

এ ঘটনায় চীনের আরেক নাগরিক ওয়াং উকিং ও পাকিস্তানি নাগরিক হামিদ আহত হয়েছেন বলে ওই মুখপাত্র জানিয়েছেন।

এর আগে করাচির (পূর্ব) এসএসপি সৈয়দ আব্দুল রহিম সিরাজিও বিস্ফোরণে চীনের বেশ কয়েকজন নাগরিক নিহত হয়েছেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।

টেলিভিশন ফুটেজে একটি সাদা মাইক্রোবাসে আগুন জ্বলতে ও এর অবশিষ্টাংশ থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলি উঠতে দেখা গেছে। পরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা হয়। মাইক্রোবাসটির আশপাশের ভবনের জানালাগুলো ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়।

বিস্ফোরণটি যখন ঘটে তখন মাইক্রোবাসটি বিশ্ববিদ্যালয়ের কমার্স বিভাগের দিক থেকে পাশের কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের দিকে মোড় নিচ্ছিল, এমনটি মনে হয়ে বলে ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

টেলিভিশনের ফুটেজে ঘটনাস্থলে পুলিশ ও উদ্ধারকারী বিভাগের লোকজনের উপস্থিতি দেখা গেছে।

করাচির ডিআইজি (পূর্ব) মুকাদ্দাস হায়দার জানিয়েছেন, প্রাথমিক তথ্যে দেখা গেছে মাইক্রোবাসটি হোস্টেল থেকে কনফুসিয়াস ইনস্টিটিউটের দিকে যাচ্ছিল।

চারজন নিহত হয়েছে নিশ্চিত করে তিনি বলেন, ইনস্টিটিউটের প্রবেশ পথে মাইক্রোবাসটির ডানপাশে বিস্ফোরণটি ঘটে। এটা কী ধরনের বিস্ফোরণ আমরা তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি।

বোম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড তাদের প্রতিবেদনে জমা দেয়ার পর বিষয়টি নিশ্চিত করা যাবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ইধি রেসকিউ সার্ভিস জানিয়েছে, মাসকান চৌরঙ্গির কাছে একটি হাইএইস মাইক্রোবাসে ‘সিলিন্ডার বিস্ফোরণ’ ঘটেছে। তবে পুলিশ বিস্ফোরণের ধরনটি নিশ্চিত করেনি।

সিন্ধুর মুখ্যমন্ত্রীকে ফোন করে বিস্ফোরণের ঘটনার বিষয়ে শোক প্রকাশ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ।