।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

আবারও উত্তেজনা বাড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস। ভারতের মুম্বাইতে সম্প্রতি ভাইরাসটির নতুন ভ্যারিয়েন্ট এক্সই এবং কাপা’র একটি করে কেস পাওয়া গেছে।

এটি ভারতে এক্সই ভ্যারিয়েন্টের প্রথম কেস।

জানা গেছে, জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের সময় মোট ৩৭৬টি নমুনা নেওয়া হয়েছিল, এর মধ্যে ২৩০টি ছিল মুম্বাইয়ের। এটি ছিল জিনোম সিকোয়েন্সিং ট্রায়ালের ১১তম ব্যাচ। ২৩০টি নমুনার ২২৮টি নেওয়া হয় ওমিক্রন থেকে, বাকি দুটি এক্সই ও কাপা ভ্যারিয়েন্টের।

করোনার একটি নতুন মিউট্যান্ট ভ্যারিয়েন্ট এক্সই, যা ওমিক্রনের সাবভ্যারিয়েন্ট বিএ.২ থেকে প্রায় ১০ শতাংশ বেশি সংক্রামক হতে পারে। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)।

এক্সই হলো ওমিক্রনের দুটি উপরেখা বিএন.১ এবং বিএ.২ এর একটি পুনঃসংযোজক স্ট্রেন। হু বলছে, যতক্ষণ না এর সংক্রমণ হার এবং রোগের আচরণে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন দেখা না যায়, ততক্ষণ পর্যন্ত এটি ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সঙ্গে যুক্ত থাকবে।

এক্সই স্ট্রেন প্রথম শনাক্ত হয়েছিল ১৯ জানুয়ারি, যুক্তরাজ্যে। এরপর ৬০০টিরও বেশি কেস নিশ্চিত করা হয়েছে।

ব্রিটেনের হেলথ প্রোটেকশন এজেন্সির প্রধান চিকিৎসা উপদেষ্টা সুজান হপকিন্স বলেছেন, এই ভ্যারিয়েন্টের সংক্রামকতা, তীব্রতা বা তাদের বিরুদ্ধে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা সম্পর্কে উপসংহার টানতে এখনো যথেষ্ট প্রমাণ নেই।

হু জানিয়েছে, তারা এক্সই’র মতো রিকম্বিন্যান্ট ভ্যারিয়েন্ট থেকে হওয়া বিপদের ওপর ক্রমাগত নজর রাখছে। এই সম্পর্কিত প্রমাণ সামনে আসার সঙ্গে সঙ্গে  আপডেট করা হবে। এক্সই ছাড়াও আরেকটি রিকম্বিন্যান্ট ভ্যারিয়েন্ট এক্সডি’র দিকে নজর রাখছে হু, যা ডেল্টা এবং ওমিক্রনের একটি হাইব্রিড। ফ্রান্স, ডেনমার্ক এবং বেলজিয়ামে এটি পাওয়া গেছে।