।। বার্াকক্ষ প্রতিবেদন ।।

প্রশিক্ষণ চলাকালে মধ্য আকাশে দক্ষিণ কোরিয়ার বিমান বাহিনীর দুই বিমানের সংঘর্ষে চার পাইলট নিহত হয়েছেন।

দেশটির বিমান বাহিনী জানিয়েছে, শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টা ৩৭ মিনিটের দিকে দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় শহর সাচছানের কেটি-ওয়ান বিমান ঘাঁটি থেকে ৬ কিলোমিটার দক্ষিণে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সরকারি কর্মকর্তাদের বরাতে বার্তা সংস্থা ইয়োনহ্যাপ জানায়, সংঘর্ষে বিধ্বস্ত হওয়া বিমান ও পাইলটদের খোঁজে ১৩০ জন সেনা, ৯৫ জন পুলিশ কর্মকর্তা, ৬০ জন দমকল কর্মীর পাশাপাশি তিনটি হেলিকপ্টার তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযানে যোগ দেয়।

এক বিবৃতিতে বিমান বাহিনী বলেছে, “জরুরিভিত্তিতে বিমান ছাড়ার চেষ্টা সত্ত্বেও দুই বিমানের দুই প্রশিক্ষণার্থী পাইলট ও দুই ফ্লাইট ইন্সট্রাক্টর মারা যান।”

এ ঘটনার বেসামরিক কারও মৃত্যু হয়নি এবং দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে ও বিমান দুটি যে এলাকায় বিধ্বস্ত হয়েছে সেই এলাকার বাসিন্দাদেরসহ সামগ্রিক ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণে একটি টিম গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, মূলত একটি কৃষিপ্রধান এলাকায় বিমান দুটি বিধ্বস্ত হয়েছে। ইয়োনহ্যাপ যে সব ছবি প্রকাশ করেছে সেগুলোতে একটি পর্বত থেকে ধোঁয়া উঠতে ও একটি খামার বাড়ির সামনে বিমানের টুকরার আঘাতে ভেঙেচুরে যাওয়া একটি গাড়ি দেখা গেছে।

যে দুটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে সেগুলো এক ইঞ্জিনের কেটি-ওয়ান বিমান। হাল্কা এসব যুদ্ধবিমান দক্ষিণ কোরিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিরক্ষা উন্নয়ন সংস্থা ও তাদের ঠিকাদার কোরিয়ান এয়ারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রিজ মিলে যৌথভাবে তৈরি করে।