।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহী-২ আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, আমাদের শহরের রাস্তাগুলো বড়ই আলোকিত। আলোয় ঝলমল করে। এর জন্য রাজশাহীবাসী গর্ব করে। আমি নিজেও গর্বিত। কিন্তু এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের যদি উন্নয়ন না হয়, শিক্ষার্থীদের মাঝে যদি জ্ঞানের আলো না ছড়ায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যদি আলোকিত না হয়; তবে একদিন রাজশাহী অন্ধকার হয়ে যাবে। তাই আমাদের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো আলোকিত করতে হবে। জ্ঞানের আলোকে আরও ছড়িয়ে দিতে হবে।

সোমবার (২৮ মার্চ) রাজশাহী ভোলানাথ বিশ্বেশ্বর হিন্দু অ্যাকাডেমির চতুর্থ তলা ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারিত ভবনের উদ্বোধন ও বার্ষিক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এর আগে সংগীত, নৃত্য ও আবৃত্তি পরিবেশন করেন ঐতিহ্যবাহী স্কুলটির শিক্ষার্থীরা।

এ সময় শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য বাদশা বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধাবী হয়ে যদি জ্ঞানের আলো ছড়াতে পারে, তবেই রাজশাহী ঝলমলে হবে। তাদের শিক্ষার আলো দেশ ও জাতিকে আলোকিত করবে। এতে করে রাজশাহী কোনদিনও অন্ধকার হবে না। শিক্ষার্থীদের সিলেবাসে মুক্তিযুদ্ধের পাঠ্যপুস্তক আরও বেশি করে অন্তর্ভূক্ত করতে হবে। তারা যেন সিলেবাসেই দেশের সংবিধান পাঠের সুযোগ পায় সেই ব্যবস্থাও করতে হবে।

অনুষ্ঠানে ভোলানাথ বিশ্বেশ্বর হিন্দু অ্যাকাডেমি নিয়ে কিছু কথা বলেন ফজলে হোসেন বাদশা। বলেন, এই স্কুলকে আমি অত্যন্ত শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার দৃষ্টিতে দেখি। আমি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করেছি ভোলানাথ বিশ্বেশ্বর হিন্দু অ্যাকাডেমিসহ রাজশাহী সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে আলোকিত করতে। আমার শিক্ষাগুরু এই স্কুলের প্রাক্তন শিক্ষক। সেই সুবাদে আমি এই স্কুলের ছাত্র। আমার মেয়াদ শেষের আগেই যেন স্কুলটি সরকারিকরণ করা যায় এ নিয়ে আমার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা থাকবে।

ভোলানাথ বিশ্বেশ্বর হিন্দু অ্যাকাডেমি পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি অ্যাড. জগদীশ চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনার শ্রী সঞ্জিব কুমার ভাটী, ও রাজশাহী নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার।