।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

সমাজের অগ্রগায়নে চলচ্চিত্রের বিরাট অবদান রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, জীবনেরই প্রতিচ্ছবি হলো চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্র সমাজ সংস্কারে বিরাট অবদান রাখতে পারে। এর মাধ্যমে জীবন দর্শন প্রকাশ পায়।

বুধবার (২৩ মার্চ) দুপুরে ‘জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০২০’ প্রদান অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শেখ হাসিনা বলেন, চলচ্চিত্র ইতিহাস ধরে রাখে। এর মাধ্যমে ইতিহাসের ধারা জানা যায়। অজানাকে জানার সুযোগ করে দেয় চলচ্চিত্র; যা জীবনের সঙ্গে মিশে যায়। সমাজের অনিয়ম দূর করতে অবদান রাখে চলচ্চিত্র।

তিনি বলেন, চলচ্চিত্রের মাধ্যমে মানুষের প্রতি ভালোবাসা ও দায়বদ্ধতা প্রকাশ করা যায়। মানুষের সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ এবং তা মানুষের কাছে পৌঁছানো যায় চলচ্চিত্রের মাধ্যমে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষকে দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ করে চলচ্চিত্র। শিক্ষা দেওয়া এবং দেশকে এগিয়ে নিতে চলচ্চিত্র অবদান রাখে।’ তিনি বলেন, ‘যারা চলচ্চিত্রের সঙ্গে জড়িত, তাদের কাছে আহ্বান, দেশ যাতে এগিয়ে যায় সে জন্য কাজ করতে হবে।

এ শিল্পের সঙ্গে যারা জড়িত তাদের পাশে থাকার কথা জানিয়ে সমাজের বিত্তবানদেরও শিল্পীদের পাশে থাকার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। এই শিল্প আরও বিকশিত হবে। এখন ডিজিটাল বাংলাদেশে শিল্প বিকাশের আরও সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

পুরস্কারপ্রাপ্তদের ধন্যবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, আপনারা চমৎকার কাজ উপহার দিয়েছেন। উত্তরসূরিরাও এগিয়ে যাবে পূর্বসূরিদের অনুসরণ করে।