।। সংবাদদাতা, কুষ্টিয়া ।।

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে ছামি হোসেন (১৪) নামে এক স্কুলছাত্র সেলফি তুলতে গিয়ে ট্রেনের ধাক্কায় ব্রিজ থেকে নদীতে পড়ে মারা গেছে। শুক্রবার (১১ মার্চ) বিকেল ৫টার দিকে কয়া রেলওয়ে ব্রিজের ওপরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

খুলনা থেকে আসা ডুবুরি দল কয়েক ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত ১০টার দিকে গড়াই নদী থেকে ওই স্কুলছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত ছামি হোসেন (১৪) কুমারখালী উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের এলঙ্গীপাড়া গ্রামের হারুনের ছেলে এবং স্থানীয় এমএন হাইস্কুলের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র।

নিহত ছামির চাচা আরিফুল জানান, বিকেলে কয়া রেলওয়ে ব্রিজের ওপর চার বন্ধু একই এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে তুহিন (১৪), রিপন শেখের ছেলে বাধন (১৩) ও আলমগীর হোসেনের ছেলে রাজ্জাক (১৫) মোবাইল ফোনে সেলফি তোলার সময় হটাৎ করেই ট্রেন চলে আসে। এসময় ছামি ট্রেনের ধাক্কায় গড়াই নদীতে পড়ে যায়। পরবর্তীতে কুমারখালী থানায় খবর দেয়া হলে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে কয়েক ঘণ্টা পর তার মরদেহটি উদ্ধারের চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হয়। পরে খুলনা থেকে ডুবুরি দল এসে কয়েক ঘণ্টা চেষ্টার পর রাত দশটার দিকে গড়াই নদী থেকে ছামির মৃতদেহ উদ্ধার করে।

কুমারখালী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ইন্সপেক্টর বখতিয়ার উদ্দিন জানান, ব্রিজ থেকে ছেলেটি নদীর যে স্থানে পরে তলিয়ে যায়, সেখানে গভীর হওয়ার কারণে লাশ উদ্ধার করতে এত সময় বেশি লাগছে। তবে আমরা লাশটি উদ্ধারে সক্ষম হয়েছি।

কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান তালুকদার এঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।