।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধ এখন চরম পর্যায়ে। তবে এই সংঘাত থামাতে এখন আলোচনার সুর তুলছে উভয়পক্ষ। শুক্রবার রাতে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র সের্গেই নাইকেফোর্ভ জানান, ইউক্রেন শান্তি ও যুদ্ধবিরতি নিয়ে আলোচনায় বসতে প্রস্তুত ছিল, এখনও আছে। এ বিষয়ে আমাদের অবস্থান অপরিবর্তিত।

তার আগে চলমান উত্তেজনা নিয়ে বেলারুশের রাজধানী মিনস্ক-এ ইউক্রেনকে আলোচনায় বসার প্রস্তাব দেয় রাশিয়া। কিন্তু ক্রেমলিন এর কিছুক্ষণ পর জানায়, কিয়েভ আলোচনার জন্য পোল্যান্ডের রাজধানী ওয়ারসকে বেছে নিতে চায়। এমনকি বেলারুসে আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখান করেছে বলেও অভিযোগ করেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ। কিয়েভের কাছ থেকে এরপর আর কোনও প্রতিক্রিয়া না পাওয়ার কথা তুলে ধরেন তিনি।

তবে এ বিষয়ে মুখ খুললেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির মুখপাত্র। তিনি ক্রেমলিনের আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখানের অভিযোগ পুরোপুরি নাকচ করে দিলেন।

মুখপাত্র সের্গেই নাইকেফোর্ভ বলেন, রুশ ফেডারেশনের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাবে সম্মত হয়েছি আমরা। আলোচনার বিষয়ে স্থান নিয়ে কথাবার্তা হচ্ছে। যত দ্রুত এই বৈঠক শুরু হবে স্বাভাবিক জীবন পুনরায় শুরু করা সম্ভব বলেও উল্লেখ করেন তিনি। কবে কখন আলোচনা হতে পারে তার দিনক্ষণ নির্ধারিত হয়নি। এদিকে কিয়েভ দখলে নিতে সর্বাত্মক আক্রমণ অব্যাহত রেখেছে রুশ বাহিনী। সূত্র: সিএনএন