।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

দৈনিক শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা এখনও আট হাজারের উপরে থাকলেও বুধবার থেকে সব আসন পূর্ণ করে ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল কর্তৃপক্ষ।

সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানিয়ে রেল কর্তৃপক্ষ বলেছে, মোট আসনের অর্ধেক টিকেট অনলাইনে বিক্রি হবে, বাকি টিকেট পাওয়া যাবে কাউন্টারে।

রেলওয়ের উপ-পরিচালক (টিসি) নাহিদ হাসান খাঁন স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ এখন নিম্নমুখী। ইতোমধ্যে টিকাদান কার্যক্রমও জোরদার করা হয়েছে। মানুষ টিকা নিয়ে ট্রেনে ভ্রমণ করছেন।

“ফলে ট্রেনে যাত্রীর চাপ বেড়েছে। দেশের অর্থনৈতিক যাত্রী চাহিদা পূরণের স্বার্থে যাত্রী চাহিদা পূরণ করার প্রয়োজনীয়তা দেখা দিয়েছে।”

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনের প্রভাবে দেশে দ্রুত সংক্রমণ বাড়তে থাকায় গত ১৫ জানুয়ারি ট্রেনে অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহন শুরু করে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সে সময় দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ছিল সাড়ে তিন হাজারের নিচে।

তা বাড়তে বাড়তে ২৫ জানুয়ারি ১৬ হাজার ছাড়িয়ে যায়। এরপর ধীরে ধীরে দৈনিক শনাক্ত রোগী কমতে শুরু করেছে। ৪ ফেব্রুয়ারির পর থেকে সেই সংখ্যা ১০ হাজারেই নিচেই থাকছে। কিন্তু রোববারও তা ছিল  আট হাজারের বেশি।

রেল কর্তৃপক্ষ বলছে, সব আসনে টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত হলেও আন্তঃনগর ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকিট ও স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম টিকিট বিক্রি সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।

“স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাউন্টারে অর্ধেক ও বাকি অর্ধেক টিকিট অনলাইন বা অ্যাপে বিক্রি করা হবে। কাউন্টারে টিকেট ইস্যু, ট্রেনে ভ্রমণের ক্ষেত্রে যাত্রীর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ ও মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে হবে। তবে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে আন্তঃনগর ট্রেনে খাবার পরিবেশন ও রাতে বেডিং সরবরাহ করা যাবে।”