।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ভারতে গত একদিনে ২ লাখ ৬৮ হাজার ৮৩৩ জন কোভিড রোগী ধরা পড়েছে। দিনে শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ দশমিক ৬৬ শতাংশে।

ওমিক্রনের দাপটের মধ্যে আগের দিন শুক্রবারও দেশটিতে দুই লাখ ৬০ হাজারের বেশি শনাক্ত হয়েছিল। শনাক্তের হার ছিল ১৪ দশমিক ৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য উদ্ধৃত করে ভারতের গণমাধ্যম শনিবার জানিয়েছে,গত একদিনে ওমিক্রমে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৫ শতাংশ বেড়েছে।

বৃহস্পতিবার দেশটিতে শনাক্তের সংখ্যা ছিল আড়াই লাখের নিচে। তবে একদিনের ব্যবধানেই শুক্রবার ৬ দশমিক ৭ শতাংশ রোগী বেড়ে আড়াই লাখ পার হয়ে যায়।

গত মে মাসের পর এখন পর্যন্ত এটাই একদিনে রোগী শনাক্তের সর্বোচ্চ সংখ্যা।

ডেল্টার দাপটে গতবছর মার্চ-এপ্রিল-মে মাসে ভয়ঙ্কর বিপর্যয়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয় ভারতকে। সে সময় ৭ মে রেকর্ড ৪ লাখ ১৪ হাজার রোগী শনাক্ত হয়েছিল।

এনডিটিভি জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিডে আক্রান্ত ৪০২ জনের মৃত্যু হয়েছে, আগের দিন এই সংখ্যা ছিল ৩১৫ জন। মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪ লাখ ৮৫ হাজার ৭৫২।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রনে মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৬ হাজার ৪১ জন।

কোভিডে সব থেকে বেশি বিপর্যস্ত মহারাষ্ট্র, নতুন করে সেখানে শনাক্ত হয়েছেন ৪৩ হাজার ২১১ জন।

এরপরের অবস্থানেই রয়েছে দিল্লি। শুক্রবার সেখানে দৈনিক শনাক্তের হার বেড়ে দাঁড়ায় ৩০ দশমিক ৬৪ শতাংশে।

ভারতে সব মিলিয়ে শনাক্ত কোভিড রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ৬৭ লাখে পৌঁছেছে। মোট সক্রিয় কোভিড রোগীর সংখ্যা ১৪ লাখ ১৭ হাজার ৮২০ জন। মোট আক্রান্তের ৩.৮৫ শতাংশ এখন ভাইরাস সংক্রমিত অবস্থায় রয়েছে।

দেশটিতে এই মহামারীর সংক্রমণ ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশবাসীকে টিকা নেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, তার সরকার এখন পর্যন্ত দেশের ৭০ শতাংশ প্রাপ্তবয়স্ককে দুই ডোজ কোভিড টিকা দিতে পেরেছে।

মাস্ক পরিধানসহ কোভিড প্রটোকল মেনে চলার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

ভারতে একদিনে সুস্থ ১ লাখ ২২ হাজার ৬৮৪ জনকে মোট সুস্থ হয়েছেন তিন কোটি ৪৯ লাখ ৪৭ হাজার ৩৯০ জন।