grand river view

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে সারাদেশে বিআরটিসির বাসে ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

আসছে ১ ডিসেম্বর থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে এই সিদ্বান্তে সম্মতি দিয়েছেন।

শুক্রবার ঢাকায় নিজের বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের বলেন, “শেখ হাসিনা সরকার জনগণের সরকার, জনঘনিষ্ঠ এবং যৌক্তিক কোনো দাবিতে তিনি সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে থাকেন।

“আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে শিক্ষার্থীরা হাফ ভাড়ায় বিআরটিসি বাসে যাতায়াত করতে পারবে।”

ওবায়দুল কাদের বলেন, বাসে অর্ধেক ভাড়া দিতে হলে ছাত্র-ছাত্রীদের অবশ্যই নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ‘বৈধ’ পরিচয়পত্র সঙ্গে রাখতে হবে, সেখানে ছবিও থাকতে হবে।

সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত শিক্ষার্থীরা বিআরটিসি বাসে চলাচলে এ সুবিধা পাবে।

“তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটির দিনে এ কনসেশন প্রযোজ্য হবে না। শিগগিরই এ বিষয়ে বিআরটিসি প্রজ্ঞাপন জারি করবে।”

ডিজেলের দাম ২৩ শতাংশ বাড়ানোর পর পরিবহন মালিকদের চাপে সরকার বাসের ভাড়া ২৭ শতাংশ বাড়ায়। এর পর থেকেই বাসে অর্ধেক ভাড়া দেয়ার দাবিতে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। বুধবার সড়কে সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর সেই আন্দোলন আরও গতি পায়।

সরকার বিআরটিসির বাসে শিক্ষার্থীদের জন্য ‘হাফ’ ভাড়ার ব্যবস্থা করলেও রাষ্ট্রায়ত্ত এ কোম্পানির বাসের সংখ্যা ঢাকার যাত্রীর তুলনায় নগন্য। ফলে বেসরকারি বাসেও একই নিয়ম চালু না হলে শিক্ষার্থীদর উপকার হবে না খুব একটা।  

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, বেসরকারি মালিকানাধীন বাস-মিনিবাসেও শিক্ষার্থীদের ‘কনসেশন’ দেয়ার বিষয়টি নিয়ে শনিবার বিআরটিএতে বৈঠক হবে। পরিবহন মালিক এবং শ্রমিক ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্টরা সেখানে থাকবেন।

“আশা করি সামাজিক দায়বদ্ধতা এবং শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি সংবেদনশীল থেকে পরিবহন মালিকরা ইতিবাচক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন।”

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.