।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

আফগানিস্তানে নয়া সরকার গঠন নিয়ে তালেবান নেতাদের মধ্যে বড় আকারের বিরোধ হয়েছে। সিনিয়র তালেবান নেতাদের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে মোল্লা আবদুল গণি বারাদার এবং মন্ত্রিসভার এক সদস্যের সঙ্গে এই বিরোধ হয়েছে।

গত কয়েক দিন ধরেই জনসম্মুখে নেই নবগঠিত আফগান সরকারের উপপ্রধানমন্ত্রী আবদুল গণি বারাদার। তারপর থেকেই তালেবান নেতাদের বিরোধের খবর পাওয়া যাচ্ছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে তা অস্বীকার করছে তালেবান কর্তৃপক্ষ।

তালেবানের একটি সূত্র বিবিসিকে জানিয়েছে আবদুল গণি বারাদার এবং আফগানিস্তানের শরণার্থী বিষয়ক মন্ত্রী খলিল উর-রহমান হাক্কানির মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়েছে। সেসময় আশেপাশে থাকা তাদের সমর্থকেরাও পরস্পরের দিকে তেড়ে যায়।

কাতারে অবস্থানরত এক সিনিয়র তালেবান নেতা এবং সংশ্লিষ্ট নেতাদের ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র জানিয়েছে, গত সপ্তাহে দুই সিনিয়র তালেবান নেতার মধ্যে বিরোধ হয়। নতুন অন্তর্র্বতী সরকারের কাঠামো নিয়ে আব্দুল গণি বারাদার অসন্তোষ প্রকাশ করলে বিরোধ তৈরি হয়। এছাড়া আফগানিস্তানে জয় পাওয়ার কৃতিত্ব কারা নেবেন তা নিয়েও বিরোধ হয়।

আব্দুল গণি বারাদার মনে করেন তার মতো যারা কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়েছেন তাদের কারণেই বিজয় এসেছে। আর হাক্কানি নেটওয়ার্কের তালেবান নেতারা মনে করেন লড়াইয়ের মাধ্যমেই জয় এসেছে।

তালেবান সূত্রের বরাতে বিবিসি জানিয়েছে, বিরোধের পর কাবুল ছেড়ে চলে যান আব্দুল গণি বারাদার। বর্তমানে তিনি কান্দাহারে অবস্থান করছেন।