grand river view

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

মেট্রোরেলের চারটি বগি ও দু’টি ইঞ্জিন নিয়ে আরো একটি জাহাজ এসে পৌঁছেছে মোংলা বন্দরে।

রোববার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকেলে পানামার পতাকাবাহী “এমভি প্রিসিয়ার্স কোরাল” নামে জাহাজটি মোংলা বন্দরের ৭ নম্বর জেটিতে নোঙর করেছে।

গত ২৫ আগস্ট জাপানের কোবে বন্দর থেকে ছেড়ে আসা এ জাহাজে মেট্রোরেলের বগি ছাড়াও ২৪৪ টনের আরও ২০ টি প্যাকেজের সরঞ্জামও এসেছে। খালাস শেষে বগি ও ইঞ্জিনগুলো নদী পথেই ঢাকার উত্তরা এলাকার দিয়াবাড়ী ডিপোতে নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিদেশি জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট এনসিয়েন্ট স্টিম শিপ কোম্পানি লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার মো. ওহিদুজ্জামান।

এর আগে তিনটি বিদেশি জাহাজে করে মেট্রোরেলের মোট ৩০টি বগি মোংলা বন্দরে এসে পৌঁছায়। এসব বগি সংযোজন করে এরই মধ্যে বাস্তবে রূপ দেয়া হয়েছে। গত ২৯ আগস্ট উত্তরা থেকে পল্লবী পর্যন্ত স্বপ্নের মেট্রোরেল লাইনের ওপর দিয়ে পরীক্ষামূলকভাবে ট্রেন চালানো হয়।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মোহাম্মদ মুসা বলেন, দেশে আমদানি হওয়া মেট্রোরেলের বগিগুলো মোংলা বন্দর দিয়ে খালাস হওয়ায় বন্দরের সক্ষমতা প্রমাণ হয়েছে। এর আগে রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুকেন্দ্রের বিভিন্ন মালপত্র ও যন্ত্রাংশ মোংলা বন্দর দিয়ে আসে। ২০১৯-২০২০ সালে বন্দরের আউটার বার ড্রেজিং সম্পন্ন হয়েছে। বর্তমানে বন্দরে ইনার বারের ড্রেজিং চলছে। নাব্যতা দূর হওয়ায় এখন বড় বড় জাহাজ আসতে পারছে। সবমিলিয়ে এটি একটি প্রতিফলন যে মোংলা বন্দর একটি গতিশীল বন্দরহিসেবে রুপান্তরিত হয়েছে এবং বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

এর আগে গত ৩১ মার্চ এমভি এসপিএন ব্যাংকক জাহাজে ছয়টি, ৫ মে এমভি ওশান গ্রেস জাহাজে ছয়টি বগি ও ২০ জুলাই এমভি হরিজন-০৯ জাহাজে ১০টি বগি ও দু’টি ইঞ্জিন খালাস হয়েছে এ বন্দর দিয়ে।

মেট্রোরেল প্রকল্প বাস্তবায়নকারী রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানির (ডিএমটিসিএল) সূত্র জানায়, ২১ হাজার ৯৮৫ কোটি টাকা ব্যয়ে রাজধানীর উত্তরা থেকে মতিঝিল পর্যন্ত দেশের প্রথম মেট্রোরেল লাইন নির্মিত হচ্ছে।