।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পৃথিবীজুড়ে নানা প্রজাতির ফুল রয়েছে। ফুল শব্দটি শুনলেই সুঘ্রাণের কথা মাথায় আসে। তাইতো সবাই কমবেশি ফুল পছন্দ করেন। কেননা, ফুলের সুঘ্রাণ মানুষকে আকৃষ্ট করে। কিন্তু সব ফুলই সুঘ্রাণ ছড়ায়?

এমন ফুলও রয়েছে যা মানুষকে আকৃষ্ট করে না, বরং এর উৎকট পচা গন্ধের কারণে মানুষ এই ফুলের ত্রিসীমানাও ঘেঁষতে চায় না। এর নাম ‘মৃতদেহ ফুল’। যদিও উদ্ভিদ বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছেন Amorphophallus titanum। ফুলটি প্রস্ফুটনের সময় মৃতদেহের ন্যায় উৎকট পচা গন্ধ ছড়ায় বলে ‘মৃতদেহ ফুল’ নামেই এটি বেশি পরিচিত।

শাখা-প্রশাখাবিহীন রক্তিম লাল পাপড়ি ও হলুদ-সবুজ মিশ্রিত মঞ্জরি বিশিষ্ট এই ফুলটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুল হিসেবে স্বীকৃত। এর আকার হয়ে থাকে সাধারণত ৩ থেকে ৪ ফুট।

সন্ধ্যা ঘনিয়ে আসলে ফুলটি পরায়ন শুরু করে, ছড়াতে থাকে মাংস পচা গন্ধ। এর দ্বারা আকৃষ্ট হয়ে ক্যারিয়ন বিটল (গোবরে পোকা) নামে এক ধরনের পোকা ফুলের পরাগ রেনু নিতে এর গোড়ায় ভিড় জমায়। সেখান থেকে পরাগ রেনু নিয়ে স্ত্রী মৃতদেহ ফুলের কাছে পৌঁছে দেয় এই পোকাগুলো। এভাবে বংশবিস্তার করে ফুলটি।

তবে আশ্চর্যের বিষয় হলো, ফুলটি সন্ধ্যা থেকে গন্ধ ছড়াতে শুরু করে সারারাত তা ছড়ায়, আর ভোর হলেই বন্ধ করে দেয় গন্ধ ছড়ানো। এভাবে মাত্র ২৪ থেকে ৩৬ ঘণ্টার মধ্যে এই পরাগ রেনু ছড়ায় ফুলটি। এরপর নষ্ট হয়ে যায়।