grand river view

।। আরাফাত ই কামাল, রাজশাহী ।।

রাজশাহীর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে পড়াশোনা করেন তাসনিম তাহসিন তনু। করোনার ছোবলে সব বন্ধ হয়ে গেলে গত বছর রেজিন নিয়ে কাজ শুরু করেন তিনি। প্রথমে রেজিন নিয়ে কোনো ধারণা না থাকলেও কাজে নেমে পড়েন তনু। পরে কাজ করতে করতে রেজিন সম্পর্কে ধারণা জন্মে তার।

তনু বলেন, রেজিন এমন রাসায়নিক পদার্থ যার ভেতরে ফুল-পাতা সংরক্ষণ করা যায়, নষ্ট হয় না। রেজিন দিয়ে ট্রে, পিরিচ, টেবিল, কানের দুল, হাতের বালা, গলার মালা ইত্যাদি সুন্দর করে প্রস্তুত করা যায়। আমার ভাই এইসমস্ত কাজ খুব পছন্দ করেন এবং আমাকে সবসময় ব্যবসার প্রতি আগ্রহী করতেন। ভাইয়ের মূলধন দিয়ে শুরু হলো আমার যাত্রা। 

তাসনিম তাহসিন তনু উত্তরকালকে জানান, শুরুতে কাজ করতে সমস্যা হচ্ছিল। রেজিন তো দেশে তেমন পাওয়া যায় না, তাই। পরে বাইরের দেশ থেকে রেজিন নিয়ে এসে কাজে মনোযোগী হই।

তনু বলেন, আমি বাগানের ফুল-পাতা সংগ্রহ করি। প্রক্রিয়াজাতকরণ করে রেজিন দিয়ে মণিরত্ন প্রস্তুত করি। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ধারণ করে নিজের কল্পনার মতো সব রঙ দিয়ে তৈরি করি পণ্য। বাড়িতে বসেই অনলাইন ব্যবসা শুরু করি। ধীরে ধীরে সাড়া পড়ে আমার কাজের। অর্ডার আসতে থাকে, পণ্যও পাঠিয়ে দিই ক্রেতার কাছে।

নিজের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও নতুন উদ্যোক্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপাতত আমি নিজেকে গুছিয়ে নিতে চাই এবং ভবিষ্যতে Tonu’s Creation নামে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে শোরুম করার ইচ্ছে আছে। নতুন অনেক উদ্যোক্তা এই পেশায় আসছে, এটা ভালো সংবাদ। তাদের অনলাইন কোর্স করিয়ে প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। আমার ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যার মাধ্যমে নতুনদের সাহায্য করছি।

তিনি বলেন, কেউ যদি এ কাজে পরিশ্রম এবং ধৈর্য রাখতে পারে তবে তার সফলতা আসবেই। ঘরে বসেই মাসে প্রায় ১৫-২০ হাজার টাকা আয় করতে পারবে।