।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রাজশাহীতে নবম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী (১৫) ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ অভিযোগে থানায় একটি মামলা হয়েছে। বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজশাহী নগরের চন্দ্রিমা থানায় মামলাটি দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই ছাত্রীর বাবা।

এর আগে মঙ্গলবার সকালে ধর্ষণের ঘটনা ঘটে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। ঘটনার পর মঙ্গলবার সকালেই মেয়েটিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস (ওসিসি) সেন্টারে ভর্তি করা হয়েছে।

অভিযুক্ত যুবকের নাম মো. আকাশ (২৩)। নগরের দড়িখড়বোনা এলাকায় তার বাড়ি। আকাশ একটি জিমের প্রশিক্ষক। ঘটনার পর থেকে তিনি পলাতক বলে জানিয়েছেন চন্দ্রিমা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরান হোসেন।

এজাহারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, আকাশ ওই মেয়েটির পূর্বপরিচিত। মঙ্গলবার সকালে মেয়েটির বাবা কাজের জন্য বাইরে যান। আর চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলেন তাঁর মা। ফাঁকা বাড়িতে আকাশ গিয়ে ওই মেয়েটিকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান।

এরপর পরিবারের সদস্যরা বাড়ি গিয়ে মেয়েটিকে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে হাসপাতালে ভর্তি করেন। আকাশ তাঁকে ধর্ষণ করেছেন বলে ওই মেয়েটি তাঁর পরিবারকে জানিয়েছে। এর প্রেক্ষিতে আকাশকে আসামি করে থানায় মামলা করা হয়েছে।

ওসি জানান, হাসপাতালে ভুক্তভোগীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। অভিযুক্ত যুবককেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।