grand river view

।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

২৩ আগস্ট রাত ১১টা ২৯ মিনিটে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিলেন লাল্টু মিঞা। নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে তিনি লেখেন, “ভোলাহাটের ফলিমারি বিলে কয়েকটি নাইটকোচ, ট্রাক, মোটরসাইকেল ও সিএনজিতে ডাকাতি“। এর কিছু সময় আগেই চাঁপাইনবাবগঞ্জের ভোলাহাটে সড়ক আটকে তিনটি ঢাকাগামী নৈশকোচসহ বিভিন্ন যানবাহনে দেড়ঘণ্টাব্যাপী ডাকাতির ঘটনা ঘটে।

বুধবার (২৫ আগস্ট) ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে র‌্যাব চারজনকে আটক করে। তাদের মধ্যে সেই স্ট্যাটাসদাতা লাল্টু মিঞাও একজন।

নিজের ফেসবুক প্রোফাইলে লাল্টু মিঞা লিখে রেখেছেন তার পদ ‘সাধারণ সম্পাদক, জামবাড়ীয়া ইউনিয়ন কৃষকলীগ ও সদস্য, ভোলাহাট উপজেলা আওয়ামী যুবলীগ’। র‌্যাব জানায়, লাল্টু ভোলাহাট উপজেলার বড়গাছি হাটের মো. মহসীনের পুত্র। ডাকাত দলের সদস্য হিসেবে আরও যাদের আটক করা হয়েছে, তারা হলেন, একই এলাকার আফজাল হোসেনের ছেলে আনোয়ার হোসেন, ইউসুফ আলীর ছেলে আব্দুল জাব্বার ও আব্দুল শুকুর আলীর ছেলে মোকলেছুর রহমান।

র‍্যাব-৫ এর সিপিসি-১ চাঁপাইনবাবগঞ্জ ক্যাম্পে ডাকাত সদস্যের আটক ও অভিযানের বিষয়ে ব্রিফিং করেন র‍্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল জিয়াউর রহমান তালুকদার। তিনি বলেন, রাতের অন্ধকারে রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে ঘণ্টাব্যাপী ডাকাতির ঘটনা সাম্প্রতিক সময়ে বিরল। ডাকাতির ঘটনায় ১৫-১৬ জন অংশ নেয়। ঘটনার পর থেকেই অপরাধীদের আটক করতে অভিযান শুরু করেন র‍্যাব-৫ এর সদস্যরা। এরই ধারাবাহিকতায় ৪ ডাকাত সদস্যকে আটক করা হয়েছে। র‍্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। ডাকাতির সময় একজনের মুখের কাপড় সরে যায়। বাসের এক শ্রমিক তাকে শনাক্ত করতেও পেরেছেন। তিনি আনোয়ার।

জিয়াউর রহমান তালুকদার বলেন, ডাকাতরা লাঠি দিয়ে ঢাকাগামী কোচের সামনের অংশ ভাঙচুর করে ভেতরে ঢুকে যাত্রীদের পিটিয়ে নগদ অর্থ ও স্বর্ণালংকার ছিনতাই করে। এছাড়া একাধিক ট্রাক, মোটরসাইকেল ও পিকআপে ছিনতাই হয়েছে। 

ভোলাহাট থানায় দায়ের করা মামলা সূত্রে জানা যায়, ডাকাতির ঘটনায় ৭ লাখ ৯২ হাজার টাকা নগদ, ১ লাখ ৩২ হাজার টাকা মূল্যের ১৬টি মোবাইল, ৩ লাখ ৭৬ হাজার টাকার ৬ ভরি স্বর্ণালঙ্কার লুট করে ডাকাতরা।