।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

সিলেটের জকিগঞ্জে দেশের ২৮তম গ্যাসক্ষেত্রের সন্ধান মিলেছে, যেখান থেকে দৈনিক ১০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের প্রবাহ পাওয়া যাবে বলে বাপেক্সের ধারণা।

জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবস উপলক্ষে সোমবার এক অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ নতুন এই গ্যাসক্ষেত্রের খবর দেন।

রাষ্ট্রয়াত্ত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানি-বাপেক্স গত জুনে জকিগঞ্জ উপজেলার আনন্দপুর গ্রামে গ্যাস মজুদের সন্ধানে কূপ খনন শুরু করেছিল।

সীমান্ত উপজেলা জকিগঞ্জের নতুন এই গ্যাসক্ষেত্র থেকে ৩২ কিলোমিটার দূরে বিয়ানীবাজার গ্যাসক্ষেত্র এবং ৪৬ কিলোমিটার দূরে গোলাপগঞ্জ গ্যাসক্ষেত্র রয়েছে।

বাপেক্সের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, নতুন পাওয়া গ্যাস স্তরে দৈনিক ১০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের প্রবাহ পাওয়া যাবে বলে তারা ধারণা করছেন।

“স্তরটিতে গ্যাস ইনিশিয়াললি ইন প্লেস বা জিআইআইপি ৬৮ বিলিয়ন ঘনফুট। ৭০ শতাংশ রিকভারি বিবেচনায় উত্তোলনযোগ্য গ্যাসের মজুদ ৪৮ বিলিয়ন ঘনফুট।”

তিনি জানান ওই স্তরে গ্যাসের চাপ ৬২৬০ পিএসআই এবং সারফেইস ফ্লোইং প্রেসার (৩৬/৬৪ ইঞ্চি চোকে) ১২৭০ পিএসআই পাওয়া গেছে।

বর্তমান বাজারমূল্যে উত্তোলনযোগ্য ওই গ্যাসের দাম ১ হাজার ২৭৬ কোটি টাকা হবে বলে ধারণা করছে জ্বালানি মন্ত্রণালয়। দৈনিক ১০ মিলিয়ন ঘনফুট হারে গ্যাস প্রবাহ নিলে ১২ থেকে ১৩ বছর ওই ক্ষেত্র থেকে গ্যাস তোলা যাবে।

নতুন কূপের গ্যাস জাতীয় গ্রিডে যুক্ত করতে ৪০ কিলোমিটার পাইপলাইন তৈরি করতে হবে বলে বাপেক্সের একজন কর্মকর্তা জানান।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, “জাতীয় জ্বালানি নিরাপত্তা দিবসের ক্ষণে এবং স্বাধীনতার সুর্বণজয়ন্তীতে নতুন গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার আমাদের জন্য নিঃসন্দেহে খুবই স্বস্তির খবর। ক্রমবর্ধমান জ্বালানির চাহিদা মেটাতে নতুন গ্যাসক্ষেত্রটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।”

তিনি বলেন, বাপেক্স এর সক্ষমতা ক্রমশঃ বৃদ্ধি করা হচ্ছে। নতুন নতুন গ্যাস ক্ষেত্র আবিষ্কার, অনুসন্ধানের জন্য বাপেক্সকে ‘আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বেশি শক্তিশালী’ করা হয়েছে।

সরকারের তথ্য অনুযায়ী, দেশের তিতাস, হবিগঞ্জ, রশিদপুর, কৈলাশটিলা ও বাখরাবাদ- এই পাঁচ গ্যাসক্ষেত্রে সর্বশেষ প্রাক্কলন অনুযায়ী ১৫ দশমিক ৪৪ ট্রিলিয়ন ঘনফুট গ্যাসের মজুদ রয়েছে। এই পাঁচ ক্ষেত্র থেকেই দেশের মোট গ্যাস উৎপাদনের এক-তৃতীয়াংশ আসছে।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব আনিছুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য বেগম ওয়াসিকা আয়েশা খান, সংসদ সদস্য বেগম নার্গিস রহমান, সংসদ সদস্য খালেদা খানম, বিপিসির চেয়ারম্যান এ বি এম আজাদ ও পেট্টোবাংলার চেয়ারম্যান এ বি এম আব্দুল ফাত্তাহ বক্তব্য দেন।