grand river view

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু তার আগের দিনের চেয়ে বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৪১ জন। যা আগের দিন (৩ আগস্ট) ছিল ২৩৫ জন। এর আগে ২ আগস্ট ২৪৬ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়। তার আগের দিন (১ আগস্ট) ছিল ২৩১ জন। তার আগের দিন (৩১ জুলাই) ছিল ২১৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪১ জনকে নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ২১ হাজার ৬৩৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৮১৭ জন। তাদের নিয়ে দেশে করোনায় সরকারি হিসাবে শনাক্ত ১৩ লাখ ছাড়ালো। দেশে মোট ১৩ লাখ ৯ হাজার ৯১০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে আজ বুধবার (৪ আগস্ট) জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১৫ হাজার ১১২ জন। এদের নিয়ে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মোট সুস্থ হলেন ১১ লাখ ৪১ হাজার ১৫৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৫১ হাজার ৯০২টি, আর পরীক্ষা হয়েছে ৪৯ হাজার ৫১৪টি।

দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৭৯ লাখ ৪৮ হাজার ৬৮৩টি। এরমধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৫৮ লাখ ৫৭ হাজার ১০টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ২০ লাখ ৯১ হাজার ৬৭৩টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা রোগী শনাক্তের হার ২৭ দশমিক ৯১ শতাংশ আর এখন পর্যন্ত  ১৬ দশমিক ৪৮ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৭ দশমিক ১২ শতাংশ আর মৃত্যুর হার এক দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪১ জনের মধ্যে পুরুষ ১২৫ জন আর নারী ১১৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানাচ্ছে, দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন ১৪ হাজার ৫৪৪ জন আর নারী সাত হাজার ৯৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৪১ জনের মধ্যে ১০০ বছরের ঊর্ধ্বে রয়েছেন দুই জন, ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে তিন জন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১২ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৩৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৮২ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৫৫ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ২৫ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২২ জন আর ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে পাঁচ জন।

অধিদফতর জানাচ্ছে, মারা যাওয়া ২৪১ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগের ৯৩ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৬৮ জন, রাজশাহী বিভাগের ১২ জন, খুলনা বিভাগের ৩৬ জন, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের পাঁচ জন করে, রংপুর বিভাগের ১৫ জন আর ময়মনসিংহ বিভাগের রয়েছেন সাত জন।

২৪১ জনের মধ্যে সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১৮৫ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৩৭ জন, বাড়িতে ১৮ জন। হাসপাতালে মৃত অবস্থায় আনা হয়েছে একজনকে।