grand river view

।। শিল্প ও সাহিত্য ডেস্ক ।।

অতিমারি করোনাকালে নতুন বইয়ের পাণ্ডুলিপি নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন কবি ও লেখক নীহার লিখন। উত্তরকালের সঙ্গে আলাপকালে জানিয়েছেন মহামারির এই সময় কীভাবে তার লেখালেখিতে প্রভাব ফেলছে সে-কথাও।

‘বর্তমানে কি লিখছেন, নতুন পাণ্ডুলিপি নিয়ে কোনো পরিকল্পনা আছে?’ জানতে চাইলে নীহার লিখন বলেন, জীবন সতত একটি গতিই মানি, যা সুষম নয়, আর খুব স্বাভাবিক অর্থেই তার ভেদ থাকে। ইতোমধ্যেই এক নতুন বাস্তবতার এই জীবন আমাকে ভাবিত করে, তা একটি সত্যের দিকেই যেন, তা হচ্ছে ঠিক থাকাটা বিচ্ছিন্ন কোনো নন্দন না, বরং আরও বিশাল ও মহৎ একটা সত্তার নির্মিতিই যেন, যার জন্যে সংগ্রাম জরুরি বলেই তা আরও অর্থবহ হয়।

তিনি বলেন, এই অতিমারির সময়টিকে আমি দেখছি জাগ্রত হবার সময়। প্রকৃত জাগরণের কালটিই মানুষের, এই সময়ের কবিতায় আমি এই বোধে কিছুটা হলেও তাড়িত হচ্ছি, কবিতা লিখেছি, লিখছি, ইতোমধ্যেই আমার ৬ষ্ঠ কাব্যগ্রন্থ ‘নতুন পৃথিবীর প্রথম বনমোরগ’ এই সময়ের নির্যাসে প্রকাশিত।

তিনি আরো বলেন, প্রায় তিনটি কবিতার বইয়ের পাণ্ডুলিপি প্রস্তুত হয়ে আছে, যা প্রকাশক পেলে হয়তো বের হতে পারে, অনুবাদ করছি গ্লিকের বেশকিছু কবিতা ও একটা ওয়েবম্যাগের জন্য বেশকিছু পশতু কবির কবিতা। আত্মজৈবনিক ‘আমার পয়সা দিনের গল্পরা’ বইটির পাণ্ডুলিপি এবং উপন্যাস ‘মধুপুর’ আর ‘নো ম্যান’ নিয়েও ব্যস্ত সময় যাচ্ছে।

‘এই সময় কী করে কাটছে আপনার, কি পড়ছেন?’ এমন জিজ্ঞাসায় তিনি বলেন, মূলত বই পড়ে আর নদী দেখেই সময় কাটে আমার। এই মূহূর্তে পড়ছি, অমিতাভ ঘোষের গান আইল্যান্ড আর অরুন্ধুতির আজাদী বইটি। পাশাপাশি বিচ্ছিন্নভাবে অনেকের কবিতা আর স্নাভিক মিথোলজির উপরে একটু পড়ছি।

‘করোনা মহামারি কতটুকু প্রভাব ফেলছে আপনার লেখায়?’ এমন প্রশ্নে এই কবি বলেন, করোনা কতোটা প্রভাব ফেলছে তা ঠিক আলাদা করে বুঝতে বা বলতে পারি না। প্রথম উত্তরেই তার কিছুটা আভাস আছে মনে করি। এটা ঠিক যে করোনার বিস্তৃতি বা প্রভাব বেশ বড়সড় হলেও, মানুষের জীবনে এরকম বোধ বা বিবেচনার মূহূর্ত বা পরিসরগুলো যে এই প্রথম একটা কিছু তা কিন্তু নয়। যেহেতু এই পৃথিবী এর মধ্যেই দুটো বিশ্বযুদ্ধের ভয়াভয়তার অভিজ্ঞতায় পুষ্ট, সামাজিক, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, প্রাকৃতিক নানান বিপর্যয়ের মুখেই সে পড়েছে, কিন্তু শিক্ষা কী ছিল সেটাই বিবেচ্য বা জ্ঞানতাত্ত্বিক কী পরিবর্তনে একটা চিন্তা সে করেছে সেটাই বড় কথা।

প্রসঙ্গত, কবি ও লেখক নীহার লিখনের জন্ম ৩ অক্টোবর ১৯৮৩ সালে। তাঁর প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ: ব্রহ্মপুত্র, আমি আপেল নীরবতা বুঝি, ব্ল্যাকহোল ও পড়শিবাড়ি, পিনাকী ধনুক, মনসিজ বাগানের শ্বেত, নতুন পৃথিবীর প্রথম বনমোরগ।