।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (২১ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে তাদের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগের দিন এই হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল। ফলে রামেক হাসপাতালে আবারও মৃত্যু বাড়লো।

বৃহস্পতিবার সকালে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

হাসপাতালের পরিচালক জানান, নতুন করে মারা যাওয়া ২২ জনের মধ্যে সাতজন করোনা পজিটিভ রোগী ছিলেন। এছাড়া জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ বিভিন্ন করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাকি ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। নমুনা পরীক্ষার আগেই তাদের মৃত্যু হয়েছে।

করোনা ইউনিটে মৃত ২২ জনের মধ্যে রাজশাহী জেলার ১০ জন, নাটোরের ছয়জন, নওগাঁর দুইজন ও পাবনা জেলার চারজন মারা গেছেন।

মৃত ২২ জনের মধ্যে ১৩ জন পুরুষ ও নয়জন নারী রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১১-২০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ, ২১-৩০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ ও একজন নারী, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ ও দুইজন নারী, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ এবং ষাটোর্ধ্ব আটজন পুরুষ এবং পাঁচজন নারী ছিলেন। হাসপাতালে এ নিয়ে চলতি মাসে রামেক হাসপাতালে ৩৮৯ জনের মৃত্যু হলো। গত জুনে মারা গেছেন ৪০৫ জন।

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা ডেডিকেটেড শয্যা সংখ্যা মোট ৪৫৪টি। বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন মোট ৪৩৪ জন। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ২১০ জন। করোনা উপসর্গ নিয়ে ভর্তি আছেন ১৬৬ জন। করোনা নেগেটিভ হওয়ার পরও অসুস্থ হয়ে ভর্তি আছেন ৫৮ জন। ২৪ ঘণ্টায় নতুনভাবে এই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৩১ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৯ জন।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী, রাজশাহীর দুটি আরটি-পিসিআর মিলে বুধবার রাজশাহী জেলায় মোট ১৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এতে ৪৩ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। রাজশাহীতে বর্তমানে করোনা সংক্রমণের হার ৩৭ দশমিক ৪ শতাংশ।

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.