।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) সকাল ৮টা থেকে বুধবার (১৪ জুলাই) সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে তারা মারা যান।

এর আগে গত ২৮ থেকে ২৯ জুন পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ২৫ জনের মৃত্যু হয়েছিল। ২৪ ঘণ্টায় এটিই সর্বোচ্চ মৃত্যু। চলতি মাসে রামেক হাসপাতালে মোট ২৪৮ জনের মৃত্যু হলো। গেল জুনে মারা গেছেন ৪০৫ জন।

আজ বুধবার সকালে হাসপাতালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নতুন করে মারা যাওয়া ২৫ জনের মধ্যে ১২ জন রাজশাহীর। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর ও পাবনার তিনজন করে; নওগাঁর দুজন এবং কুষ্টিয়া ও যশোরের একজন করে রোগী মারা গেছেন।

তাদের মধ্যে রাজশাহীর তিন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুই এবং পাবনা ও যশোরের একজন করে মোট সাতজন করোনা পজিটিভ ছিলেন। রাজশাহীর দুজন এবং নওগাঁ ও নাটোরের একজন করে রোগীর করোনা নেগেটিভ হলেও শারীরিক নানা জটিলতায় কোভিড ওয়ার্ডে মারা গেছেন।

আর ১৪ জন মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে। তাঁদের মধ্যে রাজশাহীর সাতজন, নাটোর ও পাবনার দুজন করে এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নওগাঁ ও কুষ্টিয়ার একজন করে রোগী ছিলেন।

মৃতদের মধ্যে ১৫ জন পুরুষ ও ১০ জন নারী। তাঁদের মধ্যে ২১-৩০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে একজন পুরুষ ও দুজন নারী; ৪১-৫০ বছরের মধ্যে তিনজন পুরুষ ও চারজন নারী; ৫১-৬০ বছরের মধ্যে চারজন পুরুষ ও একজন নারী এবং ষাটোর্ধ্ব ছয়জন পুরুষ ও তিনজন নারী ছিলেন।

হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ছয়জন রোগী মারা গেছেন ৪ নম্বর ওয়ার্ডে। এ ছাড়া নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চারজন, ২৯, ৩০, ৩ ও ২২ নম্বর ওয়ার্ডে একজন করে; ১৫, ১৬ ও ১৭ নম্বর ওয়ার্ডে দুজন করে এবং ১৪ ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে তিনজন করে রোগী মারা গেছেন।

হাসপাতালটিতে করোনা ডেডিকেটেড শয্যার সংখ্যা ৪৫৪টি। বুধবার সকালে ভর্তি ছিলেন ৫০০ জন। ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৭২ জন। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫৪ জন।

রাজশাহীর সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের হিসাব অনুযায়ী, র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন ও আরটি-পিসিআর মিলে মঙ্গলবার জেলায় মোট ১ হাজার ৪৭১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে ২৭৭ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণের হার ১৮ দশমিক ৮৩ শতাংশ। আর শুধু রাজশাহীর দুটি আরটি-পিসিআর ল্যাবে শনাক্তের হার ৩৪ দশমিক ৬৫ শতাংশ।