grand river view

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ভারতে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা ফের বেড়েছে। একইসঙ্গে বেড়েছে নতুন সংক্রমিত রোগীর সংখ্যাও। অবশ্য দেশটির করোনা সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী হলেও স্বস্তি দিয়ে বাড়ছে সুস্থতার হারও। গত ২৪ ঘণ্টায় ভাইরাসে নতুন করে আক্রান্ত মানুষের তুলনায় দেশটিতে সুস্থ হয়েছেন বেশি মানুষ।

বুধবার (৭ জুলাই) ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন ৪৩ হাজার ৭৩৩ জন মানুষ। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় দেশটিতে নতুন সংক্রমিত রোগী বেড়েছে ৯ হাজার। সর্বশেষ এই সংখ্যাসহ মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে করোনায় আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ কোটি ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৬৬৫ জনে।

অন্যদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৯৩০ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় গত একদিনে মৃত্যু বেড়েছে প্রায় ৪০০। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৪ লাখ ৪ হাজার ২১১ জন।

এদিকে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ভারতে দৈনিক আক্রান্তের তুলনায় বেশি সংখ্যক মানুষ সুস্থ হয়েছেন। ফলে দেশটিতে কমেছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা। গত একদিনে ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৪৭ হাজার ২৪০ জন। অন্যদিকে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ৪৪ হাজার।

একসময় দেশটিতে ৩৭ লাখের বেশি সক্রিয় রোগী থাকলেও কমতে কমতে সেই সংখ্যা নেমে এসেছে প্রায় সাড়ে ৪ লাখে। গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে সক্রিয় রোগী কমেছে প্রায় ৫ হাজার। দেশটিতে এখন মোট সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৪ লাখ ৫৯ হাজার ৯২০ জন।

নতুন করে সংক্রমণের সংখ্যা বাড়ায় দৈনিক হারও আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। দেশটিতে এখন দৈনিক সংক্রমণের হার ২ দশমিক ২৯ শতাংশ। মঙ্গলবার এই হার ছিল ২ দশমিক ১১ শতাংশ।

প্রতিদিন যে সংখ্যক কোভিড টেস্ট করা হয়, তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকেই ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। ভারতে এখন সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ১৮ শতাংশ।

এদিকে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চ (আইসিএমআর) জানিয়েছে, জুলাই মাসের ৬ তারিখ পর্যন্ত ভারতে ৪২ কোটি ৩৩ লাখ ৩২ হাজার ৯৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৯ লাখ ৭ হাজার ২১৬ জনের।

এছাড়া ভারতে এখন পর্যন্ত টিকা পেয়েছেন ৩৬ কোটি ১৩ লাখ মানুষ। চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি দেশটিতে একযোগে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়।