।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে দুইটি যাত্রীবাহি ট্রেনের সংঘর্ষে অন্তত ৩০ জন নিহত এবং আরও ৫০ জন আহত হয়েছে। সোমবার ঘোটকি জেলার ধারকি শহরের কাছে এই ঘটনা ঘটে। দেশটির সংবাদমাধ্যম ডনের প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

পাকিস্তান রেলওয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন করাচি থেকে সারগোদা যেতে থাকা মিল্লাত এক্সপ্রেস ট্রেনটি লাইনচ্যুত হয়ে পাশের আরেকটি লাইনে উঠে যায়। ওই সময় রাওয়ালপিন্ডি থেকে ছেড়ে আসা স্যার সাইয়েদ এক্সপ্রেস ট্রেনের সঙ্গে দুই ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে হতাহতের এই ঘটনা ঘটে। রাইতি রেলওয়ে স্টেশনের একটু আগে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে বলে জানান তিনি।

রেলওয়ে মুখপাত্র জানান, উদ্ধারকারী ট্রেন ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হয়েছে। ইতোমধ্যে পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসন উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। করাচি, সুক্বুর, ফয়সালাবাদ এবং রাওয়ালপিন্ডিতে যাত্রীদের জন্য হেল্পলাইন সেন্টার খোলা হয়েছে বলে জানান তিনি। লাইন পরিষ্কার হয়ে গেলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হবে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা উমর তোফায়েল জানান মিল্লাত এক্সপ্রেস ট্রেনটিতে ১৫-২০ জন যাত্রী আটকা পড়ে রয়েছে। এসব মানুষদের উদ্ধারে ভারী যন্ত্রপাতি সংগ্রহের চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি। ধ্বংসস্তুপের নিচে আরও অনেকে আটকে থাকায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা উমর।

ঘোটকি জেলার ডেপুটি কমিশনার উসমান আবদুল্লাহ জানান, দুর্ঘটনায় ট্রেনের ১৩ থেকে ১৪টি বগি লাইনচ্যুত হয়েছে। এছাড়া ছয়টি থেকে আটটি বগি ‘সম্পূর্ণ ভাবে ধ্বংস’ হয়ে গেছে। তিনি বলেন, আটকে পড়া যাত্রীদের বের করে আনা উদ্ধারকারীদের জন্য বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ।