grand river view

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

টেস্টে ওয়ানডের মতো দ্রুতলয়ে রান তোলেন। কিন্তু ওয়ানডে, টি-২০ তে প্রত্যাশার চেয়ে শ্লথ হয়ে পড়ে তার ব্যাটিং। গত কয়েক বছরে তামিম ইকবালের ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে সবচেয়ে প্রচলিত আলাপচারিতা এটি।

ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে সংবাদ সম্মেলনেও নিত্য প্রশ্নের মুখে পড়েন তামিম। এমন প্রশ্ন শুনতে শুনতে রীতিমতো বিরক্ত বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক। গতকাল রাখঢাক না করেই সরাসরি সাংবাদিকদের প্রতি তামিম অনুরোধ করেছেন, ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়ে আর প্রশ্ন না করতে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের আগে গতকাল ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়েছিলেন তামিম। সেখানেই আসন্ন সিরিজে ব্যাটিংয়ের ধরন কেমন হবে জানতে চাইলে বাঁহাতি এ ওপেনার বলেছেন, আমার ব্যাটিং অ্যাপ্রোচ নিয়ে আসলে আমি অনেক কথা বলেছি। অনেকবারই বলেছি। এটা কখনোই থামে না, প্রশ্ন আসতেই থাকে। আমি গত ৪-৫ বছরে যে অ্যাপ্রোচে খেলছি সামনেও সেভাবেই খেলতে থাকব, কারণ আমি খুবই সফল। আর এটা নিয়ে ভবিষ্যতেও আমার কিছু বলার নেই। যথেষ্ট বলেছি এটা নিয়ে। আমি সবাইকে অনুরোধ করব এ বিষয়টা নিয়ে আর প্রশ্ন না করতে।

যদিও বরাবরই ওয়ানডে ম্যাচে তামিমের স্ট্রাইক রেট সমালোচনার মুখে পড়ছে। গত কয়েক বছরে সেটি আরো বেড়েছে।

দলের প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি বলেই ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়েছেন সম্ভাবনাময় ব্যাটসম্যান নাজমুল হোসেন শান্ত। তার প্রতি যথেষ্ট ধৈর্য দেখানো হয়েছে বলেই দাবি করেছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। গতকাল তিনি বলেছেন, সে ৮-৯টা ওয়ানডে খেলেছে, দুর্ভাগ্যবশত যে পারফরম্যান্স তার কাছ থেকে আশা করেছি তা পাইনি। কিন্তু ব্যক্তিগত ভাবে আমি, টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকরাও মনে করি যে, শান্ত আমাদের ভবিষ্যত্। একটা সিরিজে দলে না থাকায় সব শেষ হয়ে যায়নি। শুধু এ সিরিজ থেকে বাদ পড়াতেই আমরা তার প্রতি ধৈর্য দেখাইনি বা সে আমাদের পরিকল্পনায় নেই এমন কিছু না।

ক্যাচ মিস, রানআউটের সুযোগ নষ্ট করা, স্ট্যাম্পিং মিস মুশফিকের কিপিংয়ের ধারাবাহিক ঘটনা। নিউজিল্যান্ড সফরেও তীব্র সমালোচিত হয়েছিল তার কিপিং। তারপরও হোম সিরিজে উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে মুশফিকের প্রতিই আস্থা রাখছেন অধিনায়ক তামিম। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘ওর কিপিং নিয়ে আমি খুবই খুশি। ক্যাচ মিস বা সুযোগ মিস এগুলো খেলার অংশ, সত্যি কথা বলতে আমি জানি, সে কতটা কঠোর পরিশ্রম করে। আর আমাদের টিম ম্যানেজমেন্ট বা সবার একটা মুহূর্তের জন্যও মনে হয় না যে, মুশফিক কিপিং করবে না। সে অবশ্যই শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে শুধু না, পুরো সিরিজেই কিপিং করবে।