।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

পাকিস্তানী জঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হকের সম্পৃক্ততার তথ্য পেয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত এই নেতাকে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের শেষ পর্যায়ে এসে রোববার (২৫ এপ্রিল) বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁ বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) হারুন-অর-রশিদ।

তিনি জানান, পাকিস্তানের একটি গোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিল মামুনুল হকের। ২০০৫ সালে মামুনুল হক পাকিস্তানে যায়। সেখান থেকে পরামর্শ ও প্রশিক্ষণ নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে বোমা হামলা, অগ্নি সংযোগ ও সংহিতার ঘটনা ঘটায়। এছাড়া সরকার উৎখাতে মামুনুল সব ধরনের পরিকল্পনাও করে।পাকিস্তানে ৪০ দিন অবস্থান করে এবং সেখান থেকে জঙ্গি ও উগ্রবাদী মতাদর্শ নিয়ে দেশে ফেরে মামুনুল। 

এর আগে ২০১৩ সালে একবার ডিএমপির পক্ষ থেকে হেফাজতে ইসলামের বিরুদ্ধে দেশে জঙ্গিদের সংগঠিত করার তথ্য সামনে আনা হয়েছিলো। সেই সময় বিদেশি একটি সংবাদমাধ্যমেও এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

এর আগে গত ১৮ এপ্রিল মামুনুলকে গ্রেফতার করা হয়। ১৯ এপ্রিল আদালতে হাজির করে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুুলিশ ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত তা মঞ্জুর করেন।

পুলিশ জানায়, রিমান্ডের প্রথম দিনেই তাবলীগের সাদপন্থীদের মারধরের কথা স্বীকার করেন মামুনুল হক। পাশাপাশি ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সফরের বিরোধিতার নামে সরকার উৎখাতের অপচেষ্টার কথাও স্বীকার করেন তিনি।