।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহী নগরের সবজিবাজারে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেও বেড়েছে ক্রেতাদের ভিড়। মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। ব্যবসায়ীরা বলছেন, লকডাউনের ঘোষণা ও রমজানের কারণে বাজারে ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দামও কিছুটা বেড়েছে।

শনিবার (১০ এপ্রিল) সাহেববাজারে ঘুরে দেখা যায়, সবজির দাম গত কয়েকদিনের তুলনায় কমেছে। ব্যবসায়ীরা বলছেন, এখন সবজির মৌসুম। তাই সবজির দাম কম। অন্যদিকে কঠোর লকডাউন ঘোষণার কারণে সকাল ৯ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত বিভিন্ন দোকানপাট ও শপিংমল খোলা হচ্ছে। কিন্তু বাজারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা করা সম্ভব হচ্ছে না।

বিক্রেতা আলম বলেন, সামনে রোজা শুরু হবে। সবাই রোজার জন্য বাজার করছে। লকডাউন ও রোজার কারণে মানুষের ভিড় বেড়েছে বাজারে। ক্রেতাসমাগম বেশি হওয়ায় স্বাস্থ্যবিধি মানা সম্ভব হচ্ছে না।

ক্রেতা হাসিনা বেগম বলেন, সব কিছুর দাম বেশি। সাধারণ মানুষের মধ্যে অসচেতনতা লক্ষ্য করার মতো। তারা অবাধে শিশুসহ বাজারে এসেছেন।

রতন আলী বলেন, পাইকারি বাজারে সব সবজির দাম কম। আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এজন্য ক্রেতা সমাগম অন্যান্য সময়ের থেকে বেশি। জিনিসপত্রের দামও বেড়েছে। পেঁয়াজ প্রতি কেজি ৫ টাকা, রসুন ২০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়েছে। ছোলা বুট ৬০ কেজি, খেসারি ডাল ৬৫ টাকা, সয়াবিন ১৪০ টাকা করে বিক্রি করা হচ্ছে। মশলা, মাছ, মাংস ও ডিমের দাম কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে।

ব্যবসায়ী রফিকুল বলেন, এখন লেবুর মৌসুম না। লেবু আমদানি করা যাচ্ছে না। ফলে, লেবুর দাম বেশি। প্রতি হালি ৩০ টাকা থেকে শুরু।