।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

গত মাসের শেষ দিকে একটি ভিডিও সাক্ষাৎকারে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে দেশব্যাপী তোলপাড় সৃষ্টি হয়। সেই রেশ এখনও কাটেনি। তার ওই বক্তব্যের জবাবে বিসিবিও তাদের অবস্থান পরিষ্কার করেছে। এ বিষয়ে সাকিবের বক্তব্য জানতে চাইলে গণমাধ্যমকে তিনি বলেন, আমি আর কিছু বলতে চাই না।

অনলাইন পোর্টালকে দেওয়া ভিডিও সাক্ষাৎকারে সাকিব বলেছেন, আকরাম ভাই (ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান) বলেছেন, আমি নাকি টেস্ট খেলতে চাই না। আমার ধারণা বিসিবিতে দেওয়া আমার চিঠিটা তিনি ঠিকভাবে পড়েননি। বারবার তিনি বলছেন, আমি টেস্ট খেলতে চাই না। এটা আমি কোথাও বলিনি।

বোর্ডের কর্তাব্যক্তিদের কাজ নিয়েও প্রশ্ন তোলেন সাকিব। তিনি বলেন, ক্রিকেট অপারেশন্স জাতীয় দল নিয়ে কী কাজ করেছে, কী প্ল্যান করছে? তাদের ব্যর্থতা বা সাফল্য কী? আকরাম ভাই তো অনেক গাটসি (সাহসী) মানুষ, এর আগে উনি পদত্যাগও করেছেন। ব্যর্থতার দায় তো তার ওপরও পড়ে, নাকি?

সাকিব আরও বলেন, আমাদের এইচপি শেষ চার-পাঁচ বছরে কয়টা খেলোয়াড় তৈরি করেছে, আমি জানি না। অনেকেই আছেন, তারা এক সময় বাংলাদেশ দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। তারা আসলে (বোর্ডে) কী নিয়ে কাজ করছেন, আমি জানি না।

বিতর্কিত এমন মন্তব্যের পর সাকিব ইস্যুতে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বনানীর বাসায় জরুরি বৈঠকে বসেন আকরাম খান ও নাঈমুর রহমান দুর্জয়রা। তারা বৈঠক শেষে জানান, সাকিবের সাক্ষাৎকারটি ভালোভাবে দেখে পরে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

আইপিএল খেলতে ভারত সফরে গিয়ে মুম্বাইয়ের একটি হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা সাকিব বিসিবির এমন পাল্টা বক্তব্য নিয়ে বলেন, এ বিষয়ে আমি আর কিছু বলতে চাই না।

বিতর্কিত সেই মন্তব্যের পর যুক্তরাষ্ট্র থেকে হঠাৎ করে তড়িঘড়ি ঢাকায় ফেরেন সাকিব। তখন বোর্ডের কারও সঙ্গে বিষয়টা নিয়ে কথা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে সাকিব বলেন, না। এ নিয়ে কারও সঙ্গে কোনো আলোচনা হয়নি।