।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

নড়াইলে বনি মোল্লা নামে এক ব্যক্তিকে হত্যার দায়ে ২৬ জনের যাবজ্জীবন দিয়েছে খুলনার একটি আদালত।

খুলনা বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. নজরুল ইসলাম হাওলাদার বুধবার এ রায় ঘোষণা করেন।

একই সঙ্গে প্রত্যেক আসামিকে পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা করেছে আদালত। জরিমানা না দিলে তাদের আরও এক বছরের কারাগারে রাখারও আদেশ দিয়েছে আদালত।

২০১৯ সালের ১১ মে নড়াইলের কালিয়া উপজেলার পরবিঞ্চু গ্রামের বনি মোল্লাকে হত্যার দায়ে আদালতের এই রায় আসে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- কালিয়ার জালাল বিশ্বাসের ছেলে মফিজ বিশ্বাস (৪০), আবু শেখের ছেলে আলাম শেখ (৩৯), আবু শেখের ছেলে আবদুস সালাম শেখ (৪২), বাচ্চু খাঁর ছেলে শরিফুল খাঁ (৪৪), বাচ্চু খানের ছেলে মামুন খান (৩৯), সিদ্দিক শিকদারের ছেলে আশিক শিকদার (৩৩), সোহেল শিকদার (২৭), সালাম শেখের ছেলে সবুজ শেখ (২২), মহিদ মোল্লার ছেলে সবুজ মোল্লা (৩২), খোকন মোল্লার ছেলে খালিদ মোল্লা (২৬), সালাম মোল্লার ছেলে খোকন মোল্লা (৫৫), কিবরিয়া মোল্লা (৫০), সাদি শেখ (১৮), তোকাম শেখের ছেলে আহাদুল শেখ (২৩), ইমদাদ শেখ (২৭), ওহাব মোল্লার ছেলে শরিফুল মোল্লা (৫৩), আজিবর শেখের ছেলে বাপ্পি শেখ (৩৪), রসুল খাঁর ছেলে সুফিয়ান খাঁ (৪৩), রসুল খাঁর ছেলে আশরাফুল খাঁ (৩৭), আনোয়ার (৪৫) ওহাব মোল্লার ছেলে রুনজু মোল্লা (৩৮), শাহাদাত খাঁর ছেলে দুলাল খাঁ (৫০), দুলাল খানের ছেলে শিপলু খান ওরফে পিকুল খান (২৩), জিল্লাহ তালুকদারের ছেলে উচ্চল তালুকদার (৩৭), জাহাঙ্গীর মোল্লার ছেলে আশিক মোল্লা (২৩) ও আবুল শেখের ছেলে মো. আমজাদ শেখ (৩৭)।

তাদের মধ্যে রায় ঘোষণার সময় ২৫ জন আদালতে ছিলেন। বাপ্পি শেখ নামে একজন পলাতক রয়েছেন।

তাছাড়া অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় চার আসামিকে খালাস দিয়েছে আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আহাদুজ্জামান মামলার নথির বরাতে জানান, পূর্বশত্রুতার জেরে ২০১৯ সালের ১১ মে সকালে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে বনি মোল্লাকে হত্যা করা হয়। ঘটনার দুই দিন পর বনির বাবা হাসিম মোল্লা বাদী হয়ে ৩২ জনের নাম উল্লেখ করে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কালিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক মো. ইকরাম হোসেন পরের বছর ১৫ মার্চ ৩২ জনের বিরুদ্ধেই আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

তাদের মধ্যে দুই আসামি অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় নড়াইলের শিশু আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

আইনজীবী বলেন, মামলায় ২০ সাক্ষীর মধ্যে ১৮ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত ২৬ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে তাদের যাবজ্জীন দিয়েছে। পলাতক আসামি ধড়া পড়ার দিন থেকে তার সাজা শুরু হবে।