।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রাজশাহীর বাঘায় যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষে মজনু (২৮) নামে এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন। এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

শুক্রবার (১৯ মার্চ) দুপুরে উপজেলার বাঘা-আড়ানি সড়কের তেপুকুরিয়া-শ্রীরামপাড়া মোড়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত মজনু উপজেলার কলিগ্রামের হায়দারের ছেলে। আহতরা হলেন একই উপজেলার পান্নাপাড়া গ্রামের ভ্যানচালক শাহবাজ, ভ্যানের দুই যাত্রী অশোক এবং রাজন। তারা সবাই উপজেলার মিলিকবাঘা গ্রামের বাসিন্দা।

ঘটনার পর বাসের চালক সাজু পালিয়ে গেছে। বাস ও সুপারভাইজার সুলতানকে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তেপুকুরিয়া-শ্রীরামপাড়া যাতায়াতের রাস্তা থেকে বাঘা-আড়ানি সড়কে মোটরসাইকেল নিয়ে ওঠার সময় যাত্রীবাহী বাস সোনারতরীর সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় একটি রিকশাভ্যানেরও ধাক্কা লাগে। এক পর্যায়ে মোটরসাইকেলটি বাসের নিচে চাপা পড়ে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মোটরসাইকেল চালক মজনু। নিহত মজনু একজন ঠিকাদারের কর্মচারি বলে জানা গেছে।

পুলিশি হেফাজতে থাকা বাসের সুপারভাইজার সুলতান জানান, নওগাঁ থেকে ছেড়ে আসা বাসটি নাটোরের লালপুরের গ্রীনভ্যালি পার্কে বনভোজনে যাওয়ার উদ্দেশ্য রওনা হয়েছিল। রাস্তা ভুল করে তার ওই সড়কে ঢুকে পড়ে। যাওয়ার সময় এক পর্যায়ে দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

রাজশাহীর বাঘা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জয়দেব জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়। এ ব্যাপারে আটক সুপারভাইজারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা হবে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।