।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

নোবেল পুরস্কার বিজয়ী পাকিস্তানি শিশু অধিকারকর্মী মালালা ইউসুফজাই প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপলের সঙ্গে যৌথভাবে নাটক, শিশুতোষ সিরিজ, অ্যানিমেশন এবং ডকুমেন্টারি নির্মাণ করবেন। সোমবার মালালা এবং অ্যাপলের এক যৌথ ঘোষণায় জানানো হয়েছে, এগুলো অ্যাপলের সম্প্রচার সেবা অ্যাপল টিভি প্লাস-এ প্রচার করা হবে।

অ্যাপল টিভি প্লাস এর জন্য এর আগে কন্টেন্ট তৈরি করেছেন অপরা উইনফ্রে, স্টিভেন স্পিলবার্গ, উইল স্মিথ, অক্টাভিয়া স্পেন্সার, জেনিফার অ্যানিস্টোনের মতো তারকা নির্মাতারা। এবারে তাদের তালিকায় যুক্ত হলেন ২৩ বছর বয়সী মালালা এবং তার নতুন প্রোডাকশন কোম্পানি এক্সট্রাকারিকুলার।

এক সাক্ষাৎকারে মালালা বলেন, ‘আশা করছি, এই সহযোগিতার মধ্য দিয়ে এই প্লাটফর্ম এবং এই মঞ্চে আমি নতুন কণ্ঠ তুলে ধরতে পারবো। আশা করছি আমার মাধ্যমে আরও বেশি তরুণ এবং নারী এসব শো উপভোগ করবে, অনুপ্রাণিত হবে।’

মালালাকে নিয়ে ২০১৫ সালে একটি ডকুমেন্টারি নির্মাণ করে অ্যাপল। ২০১৮ সালে মালালা ফান্ডের সঙ্গে যুক্ত হয়ে বিশ্ব জুড়ে মেয়েদের মাধ্যমিক শিক্ষা বিস্তারে ভূমিকা রাখে।

উল্লেখ্য, ২০০৯ সালে ১২ বছর বয়সী মালালা ইউসুফজাই পাকিস্তানে তালেবান শাসনে থাকার অভিজ্ঞতা জানিয়ে বিবিসিতে ছদ্মনামে ব্লগ লেখা শুরু করেন। নারী শিক্ষার পক্ষে কথা বলায় তালেবান যোদ্ধারা তাকে বহনকারী স্কুলবাসে হামলা চালিয়ে মাথায় গুলি চালায়। পরে ওই হামলা থেকে বেঁচে যান। ২০১৪ সালে সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে ১৭ বছর বয়সে নোবেল পুরস্কার জেতেন তিনি।

২০১৮ সাল থেকে অ্যাপল নিউজে নারীদের জন্য ডিজিটাল প্রকাশনা অ্যাসেম্বলি প্রকাশ শুরু করেন। গত জুনে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন তিনি। মালালা বলেন, আমি গল্প বলায় বিশ্বাস করি কারণ এটা আমার জীবনের অংশ, আমার গল্প শুনেই সারা বিশ্বের বহু মানুষ উপলব্ধি করতে পেরেছে যে নারীদেরও শিক্ষার অধিকার রয়েছে।’

১১০তম আন্তর্জাতিক নারী দিবসে মালালা ইউসুফজাই বলেন, সারা দুনিয়ার নারীদের এখন খানিক বিরতি নিয়ে ভাবতে হবে অর্জন কতটুকু। তিনি বলেন, ‘আমি চাই প্রতিটি মেয়ে এবং নারী নিজেকে নিয়ে গর্ব করুক, নিজের জীবনে যা কিছু অর্জন তার সবটুকু নিয়েই গর্বিত হোক।’