।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

ভারতের মধ্য প্রদেশ রাজ্যে যাত্রীবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খালে পড়ে যাওয়ার পর অন্তত ৩৭ জন নিহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রাজ্যটির সিধি জেলায় এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, শারদপাঠক গ্রামের একটি সেতু থেকে পড়ে যাওয়া বাসটি ৩০ ফুট গভীর খালের পানিতে পুরোপুরি ডুবে যায়।

অন্তত সাত জন সাঁতরে তীরে এসে নিজেদের রক্ষা করতে পেরেছেন বলে রেওয়া জোনের আইজি উমেশ যোগা জানিয়েছেন।

৫০ জনেরও বেশি যাত্রী নিয়ে সিধি থেকে সাটনা যাওয়ার পথে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে দুর্ঘটনাটি ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

দুটি ক্রেন দিয়ে দুর্ঘটনায় পড়া বাসটি উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযান প্রায় শেষ পর্যায়ে থাকলেও কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের খোঁজে খালটি বরাবর ২০ কিলোমিটার পর্যন্ত টহল দল নিয়োজিত করা হয়েছে।

নিহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজন নারী ও শিশু রয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বাসটি পুরোপুরি ডুবে গিয়েছিল এবং কয়েক ঘণ্টা সেটিকে আর দেখা যায়নি, পরে জেলা প্রশাসন স্থানীয় বানগঙ্গা প্রকল্প থেকে খালটিতে পানি সরবরাহ বন্ধ করে দিলে পানি কমে যাওয়ার পর বাসটি দৃশ্যমান হয়।

বাসটি যেখানে পড়েছিল সেখান থেকে কিছুটা দূরে এটিকে পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দুর্ঘটনাটিকে ‘ভয়াবহ’ বলে উল্লেখ করেছেন।

মধ্য প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে পাঁচ লাখ রুপি করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।