।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

কুড়িগ্রামে এক পরিবারের চারজনকে হত্যার দায়ে ছয়জনের ফাঁসির রায় দিয়েছে আদালত।

কুড়িগ্রামের জেলা ও দায়রা জজ মো. আব্দুল মান্নান মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- উপজেলার দিয়াডাঙ্গা গ্রামের মনতাজ উদ্দিন, নজরুল ইসলাম মঞ্জু, আমির হোসেন, জাকির হোসেন, জালাল গাজি ও আজমত আলী শেখ।

তাদের মধ্যে জালাল গাজি পলাতক রয়েছেন।

এছাড়া আদালত নাইনুল ইসলাম নামে এক আসামিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দিয়েছে।

২০১৪ সালের ১৫ জানুয়ারি উপজেলার দিয়াডাঙ্গা গ্রামের সুলতান মণ্ডলসহ তার পরিবারের চারজনকে হত্যার মামলায় আদালত এই রায় দেয়।

সাজাপ্রাপ্ত মনতাজ উদ্দিন নিহত সুলতানের বড় ভাই।

আদালতের পিপি আব্রাহাম লিংকন মামলার নথির বরাতে জানান, ২০১৪ সালের ১৪ জানুয়ারি রাত ২টার দিকে বাড়ি ঢুকে সুলতান মণ্ডল, ভাতিজি রোমানা, ভাগ্নি আনিকাকে হত্যা করা হয়। হাসপাতালে নেয়ার পথে সুলতানের স্ত্রী হাজেরা খাতুনও মারা যান।

এ ঘটনায় সুলতানের ছেলে হাফিজুর রহমান অজ্ঞাতসংখ্যক আসামির বিরুদ্ধে ভুরুঙ্গামারী থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ সাতজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

পিপি বলেন, মামলায় চিকিৎসক ও ম্যাজিস্ট্রেটসহ ৬৫ জন সাক্ষীর মধ্যে ৫৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। সাক্ষ্য-প্রমাণে আসামিদের অপরাধ সন্দেহাতীভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের দোষী সাব্যস্ত করে আদালত এই সাজা দিয়েছে।

আসামিপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন আইনজীবী আজিজুর রহমান দুলু, মনোয়ারুল হক আলো, আমীর আলী, এটিএম এরশাদুল হক চৌধুরী শাহিন, আসাদুল হক।