।। শোবিজ প্রতিবেদন ।।

আলোচিত সংগীতশিল্পী মিলার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর তাকে গ্রেফতারে অভিযান শুরু করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পল্লবী থানা পুলিশ। প্রাক্তন স্বামী এএম পারভেজ সানজারির বাবা এসএম নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে বছর দুয়েক আগে মিলা ও তার এক সহযোগীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। সেই মামলায় সম্প্রতি মিলার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়।

মিলার ঠিকানা পল্লবী থানাধীন এলাকায় হওয়ায় গত বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সেই গ্রেফতারি পরোয়ানা পল্লবী থানায় পৌঁছেছে।

পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘মিলার বিরুদ্ধে একটি গ্রেফতারি থানায় এসেছে। আমাদের দুটি ইউনিট এই গ্রেফতারি পরোয়ানা তামিল করার জন্য অভিযান চালাচ্ছে। এর মধ্যে মিলার বাসাসহ একাধিক স্থানে অভিযান চালানো হয়েছে। তবে এখনও তাকে পাওয়া যায়নি।’

জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১২ মে সংগীতশিল্পী মিলা ও পাইলট পারভেজ সানজারি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। কিন্তু বিয়ের কিছু দিনের মধ্যেই তাদের সম্পর্কে ফাটল ধরে। দাম্পত্য কলহের জেরে ওই বছরই ৫ অক্টোবর স্বামী সানজারির বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে একটি মামলা দায়ের করেন মিলা। ওই মামলায় সানজারি জামিন পাওয়ার পর ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি মিলাকে তালাক দেন।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০১৯ সালের ২ জুন সংগীতশিল্পী মিলার সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারি দুর্বৃত্তদের ছোড়া অ্যাসিডে দগ্ধ হন। ওই ঘটনায় সানজারির বাবা এস এম নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় মিলা ও তার এক সহযোগীকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলাতে সম্প্রতি মিলার বিরুদ্ধে আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

মিডিয়া সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র জানায়, মিলা ও সানজারির মধ্যে দাম্পত্য কলহ শুরু হওয়ার পর তারা একে অপরের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করেছেন। মিলা তার স্বামীর বিরুদ্ধে যৌতুক আইন ছাড়াও ডিজিটাল আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। অপরদিকে, সানজারি তার সাবেক স্ত্রী মিলার বিরুদ্ধে প্রথম বিয়ের তথ্য গোপন করার অভিযোগে আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন।

উল্লেখ্য, সংগীতশিল্পী মিলার প্রথম বিয়ে ২০০২ সালের ৩১ জুলাই, আবির আহম্মেদ নামে এক যুবকের সঙ্গে।