।। কনটেন্ট এডিটর, সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক ।।

গত কদিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে আলোচিত আল-জাজিরার বাংলাদেশ নিয়ে নির্মিত তথ্যচিত্র। নানামুখি আলোচনা সমালোচনার মধ্যে এবার তথ্যচিত্রে ব্যবহৃত একটি নথির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

ব্লগার ও সাংবাদিক আমি রহমান পিয়াল বৃহস্পতিবার তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে দাবি করেন, আল-জাজিরা ডিএইচএল’র যে কুরিয়ার রিসিপ্ট দেখিয়েছে, বাস্তবে তার অস্তিত্বই নেই। প্রমাণ হিসেবে তিনি ওইদিন ঢাকা থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পাঠানো কুরিয়ারের লগের ছবি পোস্ট করেন।

পিয়াল তার স্বভাবসুলভ ভাষায় লিখেছেন-

“চ্যালেঞ্জ দিতেছে খালি- প্রমাণ দেন আল জাজিরা মিথ্যা বলছে! হাজারো প্রমাণ না, একটা দিমু। আল জাজিরা তাদের তথ্যচিত্রে ডিএইচএলের একটা ছবি ব্যবহার করছে। একটা রিসিপ্টের ছবি। যদিও রিসিপ্টের উপরে ১৮ মার্চ ২০১৯ লেখা, ধরে নিতেছি এটা কোনো ইনকোয়ারির জবাব। তো সেইখানে তাদের শিপমেন্ট নম্বর 1494602955, ১৩ জানুয়ারি ২০১৫ বেলা ১১-৫৫তে বুদাপেস্ট হাঙ্গেরির ঠিকানায় ডেলিভারি দেয়া হইছে।

তো রিসিপ্টের নিচে additional shipment details দেয়া। সেখানে বলা হইছে প্রেরক মেজর সামিউর রশীদ, আর তার ঠিকানা দেওয়া হইছে। সেখানে আরো দেয়া আছে কয়টার সময় প্যাকেজটা পিকাপ করা হইছে। সেখানে লেখা ১১ জানুয়ারি ২০১৫, বেলা ১২-৪৬ এ এটা পাঠানোর জন্য জমা দেয়া হইছে। তো জাজিরার দাবি বিজিবির ওই মেজর সামিউর রশীদ ওই প্যাকেজে করে ভুয়া কাগজপত্র পাঠাইছে বুদাপেস্টে।

ডিএইচএলের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাকে ফেভার হিসেবে আমি ওইদিন ঢাকা থেকে পাঠানো সব পার্সেলের লগটা চাইছি। উনি ৯ জানুয়ারি ২০১৫ থেকে ১৩ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখের লগ আমারে দিছেন। আমি এখানে ১১ জানুয়ারি ২০১৫ ঘড়ির ০০-০১ থেকে রাত ২৩-৫৯ পর্যন্ত প্রায় ২৪ ঘন্টার লগ তুলে দিতেছি তিনটা ছবিতে।

ছবির বা দিকে আছে প্রথমে শিপমেন্ট আইডি, তারপর কলামে কোথা থেকে যাচ্ছে ঢাকার কোড DAC, তারপর কলামে কোথায় যাচ্ছে বুদাপেস্ট হইলে দেখাবে BUD, একটা আছে BOD, ওইটা ফ্রান্সের বোর্দোর কোড। তারপরের কলামে কোন তারিখে কয়টার সময় প্যাকেট জমা দেয়া হইছে তার বিবরণ, তারপর প্রেরকের নাম, একাউন্ট নম্বর, তারপর প্রাপকের নাম। না পাইলাম শিপমেন্ট আইডির মিল, না পাইলাম প্রেরকের নামের লগে কারো মিল, ওই সময়ের কয়েক মিনিট আগে আর পরে ব্রিটিশ কাউন্সিল আর ডাচ বাংলার দুইটা প্যাকেজের উল্লেখ পাইলাম খালি।

এইযে ফটোশপ দিয়া ছবি বানায়া দুইনম্বরি, এইডি দিয়া আল জাজিরা আর্মি চিফরে ফাঁসাইতে চাইছে। আমি দিলাম ডিএইচএলের অরিজিনাল ডাটা। একসেস থাকলে প্রমাণ করেন আমি মিথ্যা বলতেছি, নাইলে স্বীকার করে নেন আল জাজিরা মিথ্যাবাদী…”।

পোস্টে যেতে চাইলে-