Berger Viracare

।। নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী ।।

রাজশাহীতে ট্রাফিক সার্জেন্ট পেটানো সেই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। হামলাকারী যুবক বেলাল হোসেন (২৬) বাসে চড়ে পালানোর সময় বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে নাটোর মাদরাসা মোড় থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। রাজশাহী নগর পুলিশের (আরএমপি) একটি দল এ অভিযান চালায়।

বেলালকে গ্রেফতারের পর বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় আরএমপি কমিশনারের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সেখানে আরএমপি কমিশনার কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক বলেছেন, তিনি তার ২২ বছরের চাকরি জীবনে এমন নৃশংস ঘটনা আর দেখেননি।

তিনি বলেন, আমি আমার ২২ বছরের চাকরি জীবনে একজন অফিসারকে এমন নৃশংসভাবে মারপিট করার ঘটনা দেখিনি। আমি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে চাকরি করেছি দীর্ঘদিন। এটা ব্যতিক্রমধর্মী। আসলে অস্বাভাবিক ব্যাপার। সে পলাতক অবস্থায় ছিল। একটা মামলা হয়েছে। আমরা আরএমপির বোয়ালিয়া জোনের উপ-কমিশনারের নেতৃত্বে একটা টিম গঠন করেছি। সেই টিম রাত ১টার সময় বেলালকে গ্রেফতার করেছে।

পুলিশ কমিশনার জানান, হামলাকারী বেলালের মোটরসাইকেলের কাগজপত্রের মেয়াদ ফেল ছিল। বিআরটিএ’তে খোঁজ নিয়ে তারা বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছেন। তাছাড়া তার মাথায় হেলমেটও ছিল না। এ কারণে সার্জেন্ট আটকালে তিনি উত্তেজিত হয়ে ওঠেন এবং চেলাকাঠ নিয়ে এসে বেধম মারপিট করেন। সার্জেন্টের মাথায় মেরে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, কর্মকর্তাকে সরকারি কাজে বাধা প্রদান এবং তাকে মেরে ফেলার চেষ্টার জন্য হত্যাচেষ্টাসহ অন্যান্য ধারায় মামলা করা হয়েছে। আমাদের অফিসার খুব খারাপ অবস্থায় ছিল। যেসব ধারা কাভার করে আমরা সেসব ধারায় মামলা করেছি। এখন আমরা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা করব, তার উত্তেজিত হবার পেছনে কারণটা কি। সে মাদকাসক্ত ছিল কিনা। তার অতীতে কোন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড আছে কি না সেটা দেখব। আমরা তার সমস্ত কিছু খতিয়ে দেখব।

সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহীকে আবারও নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়ার পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। তিনি বলেন, সিসি টিভির কারণে বেলাল আমাদের হাতে ধরা পড়েছে। যারা তাকে শেল্টার দিয়েছে, তাদেরও আমরা আইনের আওতায় আনব। রাজশাহী নগরের প্রতিটি নাগরিকের নিরাপত্তার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে আমরা শহরে ২০০ সিসি ক্যামেরা লাগিয়েছি। আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের আগে মোট ৫০০ সিসি ক্যামেরা লাগাতে চাই। এই শহরে অপরাধ করে কেউ পার পাবে না।

সংবাদ সম্মেলনে আরএমপির বোয়ালিয়া জোনের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজদ হোসেন, শাহমখদুম জোনের ডিসি মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ও মুখপাত্র গোলাম রুহুল কুদ্দুসসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।