।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রাজশাহী জেলা পরিষদের জায়গায় রাজশাহী কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণে স্থিতি অবস্থা জারি করেছে হাইকোর্ট।

বুধবার (২০ জানুয়ারি) বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের দ্বৈত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে রাজশাহীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণে জেলা পরিষদের জায়গা দখল ও স্থাপনা ভেঙে ফেলার অভিযোগ এনে রাজশাজী জেলা পরিষদের নির্বাচিত সদস্য গোলাম মোস্তফা হাইকোর্টে রিট পিটিশন করেন। শুনানি শেষে বিচারপতিরা এ আদেশ দেন।

এছাড়া জেলা পরিষদের মালিকানায় সার্ভে ইনস্টিটিউটের জায়গায় থাকা স্থাপনা অপসারণ, দখল ও ভেঙে ফেলা আইন অনুযায়ী হয়নি বলেও উল্লেখ করেছেন আদালত।

আদালত বিবাদীপক্ষকে ওই জায়গায় আর কোনো স্থাপনা নির্মাণ না করতে রুল জারি করেন। পাশাপাশি তাদের এই কার্যক্রম কেন অবৈধ হবে না-তা জানতে চেয়ে মন্ত্রী পরিষদ সচিব, ভূমি সচিব, আইন সচিব, স্থানীয় সরকারের সিনিয়র সচিব, রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার, নগর পুলিশ কমিশনার, জেলা প্রশাসক, সহকারী কমিশনার (ভূমি) বোয়ালিয়া, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার নামে রুল জারি করেন।

বাদীপক্ষে হাইকোর্টের শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট দেওয়ান মো. আবু ওবায়েদ হোসাইন। তিনি জানান, বিবাদীদের বিরুদ্ধে রুলনিশি জারি করা হয়েছে। এছাড়া বিবাদীপক্ষ ওই জায়গায় যাতে প্রবেশ না করে, সেজন্যও আদালত নির্দেশ দিয়েছেন।

এর আগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণের কথা বলে জেলা পরিষদের মালিকানায় থাকায় সার্ভে ইনস্টিটিউটের জায়গাটি দখলে নেয় সিটি করপোরেশন। এরপর সেখানে থাকা স্থাপনা ভেঙে ফেলা হয়। এরপরই হাইকোর্টে রিট পিটিশন করে রাজশাহী জেলা পরিষদ।