Zee5 Contract Coming Soon

।। বার্তাকক্ষ প্রতিবেদন ।।

রাজশাহীতে ফারজানা তাসনিম সিমরান (২০) নামের এক বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) দুপুরে নগরের বোয়ালিয়া থানার টিকাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

রাতে ভুক্তভোগীর মা বোয়ালিয়া থানায় বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। হামলায় অভিযুক্ত এক তরুণীকে আটক করেছে পুলিশ। 

ভুক্তভোগী ফারজানা তাসনিম সিমরান শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাগ্রিবিজনেস বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি নগরের বোয়ালিয়া থানার টিকাপাড়া এলাকার মৃত আলতাফ হোসেনের মেয়ে। সিমরান বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ৩ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন।

অন্যদিকে, অভিযুক্ত ঝর্না নগরের বোয়ালিয়া থানার টিকাপাড়া মিরেরচক এলাকার বাসিন্দা। তার মা জরিনা বেগম ভুক্তভোগীর বাড়ির কাজের বুয়া। 

ভুক্তভোগীর মা ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, ঝর্না দুপুরে আমাদের বাড়িতে আসে। তখন আমি রান্না করছিলাম। আমার সঙ্গে গল্প করতে করতে দেখি হঠাৎ সে আমার পেছনে নেই। আমার মেয়ে সিমরান তার বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করতে বাড়ির দরজার তালা খুলে বের হচ্ছিল। এসময় তার মাথার চুল ধরে জোরে টান দিয়ে ঝর্না একটি বটি দিয়ে বুকের বাম পাশে সজোরে আঘাত করে। সিমরানের চিৎকারে ঝর্না বাড়ির দরজা খুলে পালানোর চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে।

জানতে চাইলে নগরীর বোয়ালিয়া থানার ডিউটি অফিসার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শরিফুল ইসলাম বলেন, ঘটনার পর ঝর্নাকে আটক করা হয়। সে অসুস্থ হওয়ায় রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে তার ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে হামলায় ব্যবহৃত বটিসহ একটি ধারালো চাপাতি উদ্ধার করা হয়েছে। কী কারণে সে হামলা চালিয়েছে তা এখনো জানা যায়নি। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।